chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

কঙ্গোয় জঙ্গি হামলা,  নিহত ২২

ডেস্ক নিউজ:  মধ্য আফ্রিকার দেশ ডেমোক্র্যাটিক রিপাবলিক অফ কঙ্গোয় ভয়াবহ জঙ্গিরা হামলা চালিয়েছে। এতে ২২ জন নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে ১০ জনই নারী।

মঙ্গলবার দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় মেওয়ান্ডা গ্রামে অ্যালায়েড ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সের (এডিএফ) জঙ্গিরা এই হামলা চালায় বলে সংবাদমাধ্যম ডয়চে ভেলে জানিয়েছে।

স্থানীয় মানুষের দাবি, জঙ্গিদের কাছে কাটারি এবং বন্দুক ছিল। গ্রামে ঢুকে একের পর এক বাড়িতে হামলা চালায় তারা। বাদ দেয়া হয়নি শিশু এবং নারীদের। প্রবল মারের মুখে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ২২ জনের। ১০ জন গুরুতর আহত। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা হয়েছে।

এর আগে ৩১ ডিসেম্বর রাতেও জঙ্গিরা আক্রমণ চালিয়ে ২৫ জনকে হত্যা করেছিল। ২০২০ সালে একাধিকবার এ ধরনের হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে ওই জঙ্গি সংগঠনটি।

জাতিসংঘের উদ্বাস্তু বিষয়ক সংস্থা ইইএনএইচসিআর জানায়, সহিংসতা, যুদ্ধ ও সংঘাতের ফলে বিশ্বে এখন ৬৮ দশমিক ৫ মিলিয়ন, অর্থাৎ ৬ কোটি ৮৫ লক্ষ মানুষ বাস্তুচ্যুত অবস্থায় আছেন।

জাতিসংঘের হিসেব মতে, ২০১৬ সালে সারা বিশ্বে ৬ কোটি ৫৬ লাখ মানুষ ঘরছাড়া হয়েছিল। সেবছর মূলত মিয়ানমার থেকেই বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছিল।

স্থানীয় প্রশাসনের দাবি, মেওয়ান্ডায় হত্যা চালানোর পর পাশেই আরেকটি গ্রামে একই ভাবে আক্রমণ চালিয়েছিল জঙ্গিরা। তবে সেখানে নিহতের সংখ্যা এখনো জানা যায়নি।

জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা সংগঠন দীর্ঘদিন ধরেই ডেমোক্র্যাটিক রিপাবলিক অফ কঙ্গোয় শান্তি প্রতিষ্ঠার চেষ্টা চালাচ্ছে। কিন্তু বিভিন্ন গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ সেখানে লেগেই আছে। সম্প্রতি এডিএফ যে ঘটনা ঘটাচ্ছে, তাও এথনিক ক্লিনজিংয়ের ঘটনা বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। স্থানীয় মানুষ তো বটেই, জাতিসংঘও নিউ ইয়ার ইভ এবং মঙ্গলবারের ঘটনাকে গণহত্যা বলে দাবি করেছে।

স্থানীয় মানুষের দাবি, প্রশাসন হামলা রুখতে ব্যর্থ। প্রতিদিন আক্রমণের ভয়ে থাকেন সাধারণ মানুষ। নিরাপত্তার কোনো ব্যবস্থা জাতিসংঘও করে উঠতে পারেনি।

নচ/চখ

 

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...