chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

পথচারী নিখোঁজের ১১তম দিন: লাশের আশায় নালার পাশে ছেলে

উদ্ধারে ধীরগতি

নিজস্ব প্রতিবেদক : নগরীর মুরাদপুরে পা পিছলে খালে পড়ে যাওয়া পথচারী ছালেহ আহমেদ নিখোঁজের ১১তম দিন চললেও খোঁজ মিলছেনা এখনো। বাবার লাশ খুঁজে পাবার আশায় নালায় নালায় হন্যে হয়ে ঘুরছে ছেলে মাহিন উদ্দিন। অপরদিকে ফায়ার সার্ভিস ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসীনতা এবং ধীরগতির কারণে এখনও লাশ খুঁজে পাচ্ছেনা বলে অভিযোগ স্বজন ও এলাকাবাসির।

সরেজমিনে দেখা যায়, নগরীর মুরাদপুর থেকে চান্দগাঁও সমশেরপাড়া এলাকায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা রুটিন দায়িত্ব মেনে নালার আশপাশ ঘুরে চলে আসে। আজ শনিবারও মুরাদপুরের আশপাশের নালা ও খালে খোঁজ চালাচ্ছেন তারা।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে এক ফায়ার সার্ভিস কর্মী চট্টলার খবরকে বলেন, আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালাচ্ছি অন্তত লাশটা যেন খুঁজে পাওয়া যায়। আমরা এখন কেবল নালার আশপাশ দেখতেছি কোথাও লাশ ভেসে উঠলো কিনা বা কোথাও লাশের গন্ধ বেরোচ্ছে কিনা। এর বাইরে আমাদের আর কিছু করার নেই।

অভিযোগের সুরে নিখোঁজের স্বজনরা বলেন, একটি লাশ খুঁজতেও যদি তাদের এত অনীহা তবে বলে দিক আমরাই নেমে তাকে খুঁজব। তাদের লোক দেখানো খোঁজের দরকার নেই। আর কত মানুষ এভাবে গায়েব হয়ে গেলে হুশ ফিরবে নগর কর্তৃপক্ষের সেই প্রশ্নও রাখছেন এলাকাবাসি।

আগ্রাবাদ ফায়ার সার্ভিসের ওয়ারহাউস ইন্সপেক্টর সোহেল রানা বলেন, নিখোঁজ ব্যক্তিকে উদ্ধারে ১১ দিনের মতো উদ্ধার অভিযান চলছে। যেহেতু তার বেঁচে থাকার কোন সম্ভাবনা নাই ধারণা করছি তার লাশ কোথাও না কোথাও ভেসে উঠতে পারে। তাই আমরা নালার আশপাশে খোঁজ চালাচ্ছি।

উল্লেখ্য, গত ২৫ আগস্ট সকাল সাড়ে ৯টার দিকে পাঁচলাইশ থানার মুরাদপুর এলাকায় আয়োজন রেস্টুরেন্টের সামনে পা পিছলে নালায় পড়ে নিখোঁজ হন ছালেহ আহমদ। তিনি নগরীর চকবাজার এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকতেন। তার গ্রামের বাড়ি পটিয়া উপজেলার মনসা এলাকায়।

এসএএস/জেএইচ/চখ

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...