chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

সেই ছালেহ আহমদের খোঁজ মেলেনি, ষষ্ঠ দিনেও চলছে তল্লাশি

নিজস্ব প্রতিবেদক : নগরীর মুরাদপুর এলাকায় পা পিছলে খালে পড়ে যাওয়া ছালেহ আহমেদের সন্ধান এখনো মেলেনি। তাকে উদ্ধারে ষষ্ঠ দিনের মতো অভিযান চালাচ্ছে ফায়ার সার্ভিস।

আজ সোমবার (৩০ আগস্ট) বেলা নাড়ে ১১ টার দিকে আগ্রাবাদ ফায়ার স্টেশনের ওয়ারহাউস ইন্সপেক্টর আব্বাস উদ্দিন বলেন, ৬ দিনের মতো উদ্ধার অভিযান চলছে। কিন্তু ছালেহ আহমদের কোনো সন্ধান মেলেনি।

সেখানে তলিয়ে যায় সেইখান থেকে কালারপুল হয়ে শমসের পাড়া হয়ে খালে খোঁজা হচ্ছে। পাশাপাশি নালাগুলোতেও তল্লাশি করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, খালে তলিয়ে যাওয়ার দিনই ছালেহ আহমদের মৃত্যু হতে পারে বলে ধারণা করছি। পানিতে কারও মৃত্যু হলে সাধারণত মরদেহ দু’একদিনের মধ্যেই ভেসে ওঠে। বিষয়টি মাথায় রেখে তল্লাশি চালাচ্ছি। আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

কর্ণফুলী নদীতেও খোঁজ রাখা হচ্ছে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা বলছেন, ছালেহ আহমদকে খুঁজে না পাওয়ার পেছনে দুটি কারণ থাকতে পারে। প্রথমত, খালে তলিয়ে যাওয়ার দিনই তীব্র স্রোতে ছালেহ আহমদের দেহ কর্ণফুলী নদীতে চলে যেতে পারে। দ্বিতীয়ত, মরদেহ খালের ময়লা ও আবর্জনায় নিচে চাপা পড়ে থাকতে পারে।

উল্লেখ্য, গত বুধবার (২৫ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে পাঁচলাইশ থানার মুরাদপুর এলাকায় আয়োজন রেস্টুরেন্টের সামনে পা পিছলে নালায় পড়ে যান তিনি। দুর্ঘটনাস্থল ওই নালায় কোনো স্ল্যাব ছিল না।

বুধবার এ ঘটনার একটি ভিডিও চিত্র পাওয়া গেছে। তাতে দেখা গেছে, ছালেহ আহমেদ নামের ওই ব্যক্তি একটি বাস থেকে নেমে নালার পাড় ধরে হেঁটে আসছিলেন। হঠাৎ কোনো কারণে তিনি ভারসাম্য হারিয়ে পা পিছলে নালায় পড়ে যান। এ সময় এক লোক তাকে টেনে ধরতে হাত বাড়িয়েছিলেন কিন্তু তিনি আর উঠতে পারেননি।

সালেহ আহমদ নগরীর চকবাজারের কাঁচামালের ব্যবসা করতেন। তার বাড়ি চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার মনসা এলাকায়।

এসএএস/নচ

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...