chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

ট্রাফিক সার্জেন্টের বিরুদ্ধে স্ত্রীর যৌতুকের মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক: যৌতুকের জন্য নির্যাতনের অভিযোগে ইকবাল হোসেন নামে এক ট্রাফিক পুলিশ সার্জেন্টের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন তার চিকিৎসক স্ত্রী সোনিয়া সামাদ।

আজ বৃহস্পতিবার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল–৭–এর বিচারক বেগম ফেরদৌস আরার আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়।

অভিযুক্ত ইকবাল হোসেন বর্তমানে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশে কর্মরত ট্রাফিক সার্জেন্ট। বাদী চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ের বারৈয়ারহাট এলাকায় একটি ক্লিনিকে কর্মরত।

যৌতুকের জন্য মামলা দায়েরের এ তথ্য গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন ট্রাইব্যুনালের বেঞ্চ সহকারী কফিল উদ্দিন। তিনি বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১১ (গ) ধারায় মামলাটি দায়ের করেছেন চিকিৎসক সোনিয়া সামাদ।

আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে মিরসরাই উপজেলার সমাজসেবা কর্মকর্তাকে ২৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তদন্ত শেষে প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, গত ১১ ফেব্রুয়ারি তাদের বিয়ে হয়। ইকবালের শ্বশুর-শাশুড়ি থাকেন ইতালিতে। তিনি মিরসরাইয়ের জোরারগঞ্জে একটি ক্লিনিকে চিকিৎসক হিসেবে আছেন।

বিয়ের পর থেকে বাদীকে যৌতুকের জন্য চাপ দিতে থাকায় মানসিক নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে গত ৬ এপ্রিল যৌতুকের এক লাখ টাকা অভিযুক্তকে বুঝিয়ে দিয়েছেন। এমনকি ঢাকার সাভারে বাদীর পাঁচ তলা বাড়ি, একটি প্রাইভেট কার ইকবালের নামে লিখে দিতে বাদীকে চাপ দেওয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

গত ২৫ জুলাই যৌতুকের জন্য মিরসরাইয়ের জোরারগঞ্জের বাসায় ইকবাল স্ত্রীকে মারধর করেন বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়। তখন ৯৯৯ এ ফোন করলে পুলিশ এসে ওই নারীকে উদ্ধার করে। এরপর ইকবাল হোসেনকে কক্সবাজার, কুমিল্লা ও সবশেষ খুলনায় বদলি করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সার্জেন্ট ইকবাল হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, `ডাক্তার সোনিয়াকে আমি ১৫ থেকে ২০ দিন আগে তালাক দিয়েছি।’ তিনি এ ব্যাপারে আর কিছু বলতে রাজি হননি।

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...