chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

দেশে করোনায় আরও ১৯৮ মৃত্যু, শনাক্ত ৭,৫৩৫

নিজস্ব প্রতিবেদক: সারাদেশে মহামারী করোনা ভাইরাসে সংক্রমণ ও মৃত্যু দুটোই বেড়েছে আগের দিনের তুলনায়। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে সারা দেশে ১৯৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।এর আগের ২৪ ঘণ্টায় এই সংখ্যা ছিল ১৭৪। এ নিয়ে করোনায় দেশে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৪ হাজার ৫৪৭ জনে।
তাছাড়া এক দিনে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৫৩৫ জন। আগের দিন ৬ হাজার ৯৫৯ জনের শরীরে সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছিল। এ নিয়ে দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৪ লাখ ৩৩ হাজার ৩৯৬ জনে।
মঙ্গলবার (১৭ আগস্ট) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো করোনা বিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।
এর আগে সোমবার ১৭৪, রোববার ১৮৭, শনিবার ১৭৮, শুক্রবার ১৯৭, বৃহস্পতিবার ২১৫ ও বুধবার ২৩৭ জনের মৃত্যু হয়। গত ৭ জুলাই প্রথমবারের মতো দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা ২০০ ছাড়ায়। এরপর থেকে প্রায় এক মাস প্রতিদিন দুই শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়। ১৩ আগস্ট মৃত্যুর সংখ্যা দুইশর নিচে নামে।
বিজ্ঞপ্তির তথ্য বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে ৭১৯টি ল্যাবে করোনা নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এই সময়ে এসব ল্যাবে নমুনা সংগ্রহ করা হয় ৩৮ হাজার ৮৮১টি। আর আগের দিনেরসহ নমুনা পরীক্ষা করা হয় ৩৯ হাজার ২৭৮টি। গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষা মিলিয়ে এ নিয়ে দেশে করোনা ভাইরাসের মোট নমুনা পরীক্ষা হলো ৮৪ লাখ ৮০ হাজার ৮১৪টি। গত ২৪ ঘণ্টায় পরীক্ষা করা নমুনার ৭ হাজার ৫৩৫টিতে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট সংক্রমণ দাঁড়াল ১৪ লাখ ৩৩ হাজার ৩৯৬টিতে। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে সংক্রমণ শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ১৮ শতাংশ। আর এখন পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে সংক্রমণ শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ৯০ শতাংশ।
স্বাস্থ্য অধিদফতরের বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে, ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ১২ হাজার ৯৫০ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১৩ লাখ ১৪ হাজার ৯১৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ১১৬ জন পুরুষ এবং ৮২ জন নারী। এদের মধ্যে বাসায় মারা গেছেন ৩ জন। মৃত অবস্থায় আনা হয়েছে ৩ জন। বাকিরা হাসপাতালে মারা গেছেন।মোট মারা যাওয়াদের মধ্যে পুরুষ ১৬ হাজার ১৪৯ জন এবং নারী ৮ হাজার ৩৯৮ জন।
মৃত ১৯৮ জনের মধ্যে সর্বোচ্চ ৭২ জন ছিলেন ঢাকা বিভাগের, দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫২ জন চট্টগ্রাম বিভাগের ও তৃতীয় সর্বোচ্চ ২৬ জন খুলনা বিভাগের। এ ছাড়া রাজশাহী বিভাগের নয় জন, বরিশাল বিভাগের সাত জন, সিলেট বিভাগের ১৮ জন, রংপুর বিভাগের ছয় জন এবং ময়মনসিংহের আট জনের মৃত্যু হয়েছে।
বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ২৪ ঘণ্টায় ৯১ থেকে ১০০ বছরের ২, ৮১ থেকে ৯০ বছরের ১২, ৭১ থেকে ৮০ বছরের ৩৪, ৬১ থেকে ৭০ বছরের ৬৯, ৫১ থেকে ৬০ বছরের ৪১, ৪১ থেকে ৫০ বছরের ১৯, ৩১ থেকে ৪০ বছরের ১১, ২১ থেকে ৩০ বছরের ৯ এবং ১১ থেকে ২০ বছরের ১ জন মারা গেছেন।
আরএস/এনএনআর
এই বিভাগের আরও খবর
Loading...