chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

নগরীতে বৃষ্টিতে ভিজে টিসিবির পণ্য নিতে দীর্ঘ লাইন

নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রাম নগরীরে ভর্তুকি মূল্যের ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) এর পণ্য নিতে ভোর থেকে বৃষ্টিতে ভিজে লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন মানুষ।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) বেলা পৌন ১২ টায় নগরীর আন্দরকিল্লা ‘নগর ভবর’ এর সামনে দেখা গেছে শতাধিক মানুষ টিসিবির পণ্য নিতে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকলেও টিসিবির ট্রাক আসার খবর নেই। একই চিত্র দেখা গেছে জামালখান ‘ সিনিয়রর্স ক্লাব’ এর সামনেও।

ক্রেতারা জানিয়েছেন, দিন দিন তেল, চিনি, মসুর ডালের দাম বেড়েই চলেছে। লকডাউনে মানুষের আয় কমেছে। তাই সাশ্রয়ী মূল্যে তেল, চিনি, মসুর ডাল কিনতে তারা সকাল থেকে, কেউ কেউ ভোর থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে আছে।

বৃষ্টিতে ভিজে তারা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকলেও টিসিবির ট্রাক আসার নাম-নিশানা নেই বলে জানান রহিমা বেগম। তিনি বলেন, লকডাউনে খুব অর্থ কষ্টে আছি।

ইব্রাহিম খলিল নামে আরেক ব্যক্তি বলেন, অনেক দিন বন্ধ ছিল টিসিবির মালামাল বিক্রি। সকাল থেকে লাইন না ধরলে পণ্য পাওয়া যায় না।

সরেজমিনে দেখা গেছে, কেউ লাইনে দাঁড়িয়ে আছে, আবার কেউ কেউ ইটের টুকরো, বাজারের থলে দিয়ে জায়গা ধরে রাখছে।

গতকাল সোমবার থেকে নগরীর ৮টি এলাকায় ট্রাকে করে তেল, চিনি ও মসুর ডাল বিক্রি শুরু করে টিসিবি। যা চলবে আগামী ২৯ জুলাই পর্যন্ত।

প্রতিটি ট্রাকে ৬শ’ থেকে ৮শ’ কেজি চিনি, ৩শ’ থেকে ৬শ’ কেজি মসুর ডাল ও ৮শ’ থেকে ১ হাজার ২শ’ লিটার সয়াবিন তেল বরাদ্দ রাখা হয়েছে বলে টিসিবি চট্টগ্রাম কার্যালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

টিসিবির যেকোন ট্রাক সেল থেকে একজন ব্যক্তি ৫৫ টাকা কেজি দরে সর্বোচ্চ ২ থেকে ৪ কেজি চিনি, ৫৫ টাকা কেজি দরে সর্বোচ্চ ২ কেজি ডাল এবং প্রতি লিটার ১০০ টাকা দরে সর্বোচ্চ ২ থেকে ৫ লিটার ভোজ্যতেল কিনতে পারবেন।

টিসিবি চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কার্যালয়ের অফিস প্রধান জামাল উদ্দিন আহমেদ জানান, ঈদুল আজহার বন্ধের পর গতকাল সোমবার থেকে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ ৮টি এলাকায় ৮টি ট্রাকে পণ্য বিক্রি শুরু করেছে টিসিবি। লকডাউনের কারণে আমাদের পণ্য বিক্রি কার্যক্রম সীমিত করা হয়েছে।

এসএএস/নচ

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...