chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

বিদেশগামী কর্মীদের টিকার সুযোগ দেওয়ায় সুজনের ধন্যবাদ 

ডেস্ক নিউজ: বিদেশগামী কর্মীদের টিকা প্রদানে রেজিষ্ট্রেশনের সুযোগ দেওয়ায় সংশ্লিষ্ট সকল মন্ত্রণালয়কে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক প্রশাসক এবং চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন।

সৌদি অবস্থানকালীন সুজন আজ শুক্রবার (২ জুলাই) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

এসময় তিনি বলেন, বিদেশগামী কর্মীদের টিকা প্রদানে অনিশ্চয়তা শুরু হওয়ার সাথে সাথে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে যোগাযাগ করে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের অনুরোধ জানাই।

করোনা মহামারী শুরু হওয়ার পর থেকে বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে টিকাই হচ্ছে এ ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে কার্যকরী মহাষৌধ। তাই পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ টিকা প্রদানের উপর সর্বাধিক গুরুত্বারোপ করেছেন।

পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে জীবন ও জীবিকার প্রয়োজনে অবস্থান করা প্রবাসীরা ছুটিতে এসে টিকা গ্রহন নিয়ে পড়েছেন অনিশ্চয়তায়। ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও প্রবাসীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা প্রদানের কথা ঘোষণা করেছেন।

চট্টগ্রাম জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস থেকে এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তিও প্রদান করা হয়েছে। যেখানে উল্লেখ রয়েছে যেসকল বিদেশগামী কর্মীগণ ২০২১ সালের আগে বিদেশ গমনের জন্য জেলা কর্মসংস্থান অফিসে নাম নিবন্ধন করেছেন তাদেরকে সরাসরি জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস, চট্টগ্রামে এসে অথবা আমি প্রবাসী অ্যাপে প্রথমে নিবন্ধন করতে হবে।

তারপর সুরক্ষা অ্যাপে নিবন্ধন করে টিকা নিতে পারবেন। নিবন্ধনের জন্য পাসপোর্ট, ভিসা ও টিকিটের পাশাপাশি সরকার নির্ধারিত ফি বিকাশ, নগদ কিংবা শিউর ক্যাশের মাধ্যমে জমা দিতে পারবে।

এছাড়া করোনা সংক্রমণকালীন সময়ে চট্টগ্রাম মহানগর ও বিভিন্ন উপজেলাকে ভাগ করে নিবন্ধনের তারিখ নির্ধারণ করেছে জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস। বিএমইটির ডাটাবেজে নিবন্ধিত কর্মীরা সুরক্ষা অ্যাপে নিবন্ধন সফল হলে মোবাইলে ম্যাসেজের মাধ্যমে টিকার কেন্দ্র ও তারিখ জানানো সাপেক্ষে টিকা গ্রহণ করতে পারবেন বিদেশগামী কর্মীরা।

তবে এখানে উল্লেখ্য যে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন রকমের টিকা অনুমোদন করেছে সে দেশের সরকার। সেক্ষেত্রে বিদেশগামী কর্মীদের একই রকমের টিকা প্রদান করলে সংশ্লিষ্ট দেশে প্রবেশের ক্ষেত্রে জটিলতা সৃষ্টি হতে পারে। ফলে বিদেশগামী কর্মীদের টিকা প্রদানের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট দেশের অনুমোদিত টিকা প্রদানের আহবান জানান তিনি।

এ ব্যাপারে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়কে বিভিন্ন দেশে খোঁজখবর নিয়ে বিদেশগামী কর্মীদের সঠিক টিকা প্রদানের অনুরোধ জানান সুজন।

সঠিক টিকা প্রদান না করলে বিদেশগামী কর্মীদের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে এবং এর খরচও বিদেশগামী কর্মীদের বহন করতে হবে। ফলে বিদেশগামী কর্মীরা আরেক দফা জটিলতার মুখোমুখি হতে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করেন তিনি।

করোনা মহামারীকালীন সময়ে বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে বিদেশগামী কর্মীরা শহরে না এসে উপজেলা ডিজিটাল সেন্টারে আমি প্রবাসী অ্যাপ এবং সুরক্ষা অ্যাপে নিবন্ধন করার অনুরোধ জানান।

এছাড়া বিকাশ, নগদ কিংবা শিউর ক্যাশের মাধ্যমে সরকার নির্ধারিত ফি জমা দিতে জটিলতার সৃষ্টি হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন বিদেশগামী কর্মীরা।

তাই বিদেশগামী কর্মীরা যাতে কোন প্রকার জটিলতা ছাড়া টিকা গ্রহন করে নিজ নিজ কর্মস্থলে যেতে পারে তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতি অনুরোধ জানান সুজন।

এমআই/আরএস

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...