chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

বেঁচে থেকেও ভোটার তালিকায় মৃত রাউজানের ইকবাল

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাউজান উপজেলার ১৩ নং নোয়াপাড়া ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের সিকদার বাড়ির শাহ আলমের ছেলে মো. ইকবাল হোসেনকে ভোটার তালিকা হালনাগাদ করার সময় মৃত বলে দেখানো হলেও তিনি এখনো জীবিত আছেন।

মো. ইকবাল হোসেন এর জাতীয় পরিচয় পত্র আইডি নং- ১৫১৭৪৬৩৫৫৯১৩৭। ইকবাল হোসেনের চট্টগ্রাম নগরীর বহাদ্দারহাট এলাকায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

এ বিষয়ে ব্যবসায়ী মো. ইকবাল হোসেন বলেন, গত ২১ এপ্রিল সিটি ব্যাংকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন্য ঋনের জন্য আবেদন করি। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ঋণের জন্য আবেদন করার পর জাতীয় পরিচয় পত্র অনলাইনে আপলোড না হওয়ায় ব্যাংক থেকে ঋণের টাকা নেওয়া সম্ভব হয়নি।

পরবর্তীতে রাউজান উপজেলা নির্বাচন অফিসে এসে উপজেলা নির্বাচন অফিসার অরুন উদয় ত্রিপুরার কাছে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি সকল প্রকার ডাটাবেস যাচাই করে দেখতে পান ভোটার তালিকা হালনাগাদকালে ইকবাল হোসেনকে মৃত দেখানো হয়েছে।

ব্যবসায়ী মো. ইকবাল হোসেন তার জাতীয় পরিচয়পত্র থেকে মৃত কর্তন করার জন্য হলফ নামা ও জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি, নোয়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাবুল মিয়ার প্রদত্ত প্রত্যয়ন পত্র ও জাতীয়তা সনদের কপি সংযুক্ত করে জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন বিভাগের মহাপরিচালক বরাবরে রাউজান উপজেলা নির্বাচন অফিসার অরুন উদয় ত্রিপুরার মাধ্যমে আবেদন করেন।

এ ব্যাপারে রাউজান উপজেলা নির্বাচন অফিসার অরুন উদয় ত্রিপুরা বলেন, গত ২০১৭ সালে ভোটার হালনাগাদ করার সময়ে ব্যবসায়ী মো. ইকবাল হোসেনকে মৃত দেখানো হয়েছে। ঐ সময়ে নোয়াপাড়া ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার হালনাগাদ কাজ করেন শিক্ষক জামাল উদ্দিন।

ভোটার হালনাগাদ করার সময় সাইদুল্ল্যাহ নামে এক ব্যক্তি মো. ইকবাল হোসেনকে মৃত বলে তথ্য দেয়। মো. ইকবাল হোসেনকে মৃত দেখানো তথ্য ফরমে স্থানীয় ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর সিকদার ও তৎকালীন নোয়াপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মরহুম দিদারুল আলমের স্বাক্ষর রয়েছে। এ কারণে মো. ইকবাল হোসেনের নাম ভোটার তালিকা থেকে বাদ পড়েছে।

মো. ইকবাল হোসেনের নাম ভোটার তালিকা থেকে মৃত কর্তন করার জন্য আবেদন করা হয়েছে।
ইকবাল হোসেনের নাম জাতীয় পরিচয়পত্র থেকে মৃত কর্তন করার জন্য চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন অফিসের মাধ্যমে ঢাকায় প্রেরণ করা হবে বলে জানানো হয়।

এসএএস/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...