chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

মেডিটেশনে যত উপকার

ডেস্ক নিউজ: এখনকার সময়ে খুবই প্রচলিত একটা কথা হলো ধ্যান বা মেডিটেশন।  সবাই এই ধ্যান বা Meditation শিখতে চায় কিন্তু এই ধ্যান কিন্তু কোনো শেখার জিনিস নয় বরং এটা একটি অবস্থার গুণ স্বরূপ। আপনি বা আমি ধ্যান করতে পারি না বরং আমরা ধ্যান মগ্ন হতে পারি।

যদি আমরা গভীর ভাবে বুঝতে চাই তবে ধ্যান একটি গাছের ফলের মতো | যদি আমরা মাটি, জল ও সার ইত্যাদি দিয়ে সেই গাছকে ঠিক ভাবে খেয়াল রাখি তবে সেই গাছ  নিশ্চিত ফল দেবে। তেমনি মেডিটেশন বা ধ্যান একটি অবস্থা যা আপনার ইমোশন, আপনার মন ও আপনার শরীরকে নির্দিষ্ট বাতাবরণ প্রদান করে যাতে আপনি তার ফল স্বরূপ ধ্যানস্থ হতে পারেন।

“Meditation” এই শব্দটি অনেক গভীর এবং আজ পর্যন্ত এর সঠিক সম্পূর্ণ ব্যাখ্যা কেউ দিয়ে যেতে পারেনি, কারণ এটি একটি উপলব্ধির বিষয় মাত্র।  প্রতিটি মানুষের উপলব্ধি এক হতে পারেনা কারণ আপনি কত উপলব্ধির গভীর স্তরে গেছেন সেটি মাপার কোনো যন্ত্র এখনো অবধি আবিষ্কার হয়নি। তবে এটির নানা উপকারিতা। চলুন জেনে নেওয়া যাক মেডিটেশনে যত উপকার..

১. IQ লেভেল বৃদ্ধি

আমরা সবাই কিন্তু নিজেকে একটু আধটু স্মার্ট ভাবতে পছন্দ করি। এখন যদি বলি এমন একটা জিনিস আছে যা আমাদের IQ লেভেল আসলেই বাড়িয়ে দিতে পারে তাহলে নিশ্চয়ই অবাক হবে!

গবেষকদের মতে মেডিটেশন আসলেই আমাদের IQ লেভেল বাড়িয়ে দিতে পারে। ২০১১ সালে হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটিতে করা এক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ৮ সপ্তাহ বা তার বেশি মেডিটেশনের ফলে আমাদের মস্তিষ্কের “LEFT HIPPOCAMPUS, “POSTERIOR CINGULATE CORTEX” এবং “TEMPORO PARIETAL JUNCTION” অংশ আয়তনে বৃদ্ধি লাভ করে। এতে আমাদের স্মৃতিশক্তি, চিন্তাশক্তি ও নতুন কিছু শেখার ক্ষমতা অনেকাংশে বৃদ্ধি পায়।

 

২. একাডেমিক পড়াশোনার ধকল থেকে মুক্তি

সারাদিন ক্লাস, প্রাইভেট আর হোমওয়ার্কের চাপে আমরা অনেকেই কিন্তু দিশেহারা হয়ে যাই। একাডেমিক পড়াশোনার এই ধকল দূর করার অনেক ভালো একটি উপায় হলো মেডিটেশন। মেডিটেশনের ফলে  আমাদের মস্তিষ্কের “AMYGDALA” অংশের cell volume হ্রাস পায় যার ফলে আমাদের ভয়, উদ্বেগ ও ধকল হ্রাস পায়। এছাড়াও মেডিটেশন আমাদের মস্তিষ্কে আলফা ওয়েভের নিঃসরণ বৃদ্ধি করে যা দুশ্চিন্তা, দুঃখ ও রাগের মত অনুভূতিগুলো কমিয়ে আনতে সাহায্য করে।

৩. মনোযোগ বৃদ্ধি

পড়ার টেবিলে মনযোগ স্থির রাখা আমাদের সবার জন্যই কিছুটা কঠিন। বিশেষত, পরীক্ষার দিনগুলোতে একটি বিষয়ের উপর দীর্ঘক্ষণ মনোযোগ ধরে রাখা সত্যিকার অর্থেই কষ্টসাধ্য ব্যাপার। তবে এই কষ্টসাধ্য ব্যাপারটাকে তোমার জন্য কিছুটা সহজ করে দিতে পারে মেডিটেশন। পরীক্ষার দিনগুলোতে দৈনিক কিছুক্ষণ মেডিটেশন তোমার মনোযোগ ৫০% পর্যন্ত বৃদ্ধি করতে পারে।

মেডিটেশন তোমার চিন্তাশক্তিকে একটি বিষয়ে কেন্দ্রীভূত করতে শেখাবে, যার ফলে তোমার যেকোন একটি বিষয়ে গভীরভাবে চিন্তা করার ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে এবং পড়ার সময় অন্য সব চিন্তা মস্তিষ্ক থেকে দূরে থাকবে।

৪. ব্রেনকে বেশি পরিমাণে ব্যবহার

মানবদেহের সবচেয়ে জটিল, রহস্যময় ও গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হচ্ছে ব্রেন বা মস্তিষ্ক। ব্রেনই মানুষকে প্রথম পাথরের অস্ত্র তৈরি করতে শিখিয়েছে। আর সেই ব্রেনের জেনেটিক উত্তরসূরীরাই বানিয়েছে মহাশূন্য যান। মানুষ অতীতে যা করেছে, ভবিষ্যতে যা করবে তা এই ব্রেনেরই ফসল। ব্রেনই মানুষকে মানুষ বানিয়েছে। এই ব্রেনকে বেশ পরিমাণে কাজে লাগাবার জন্যে যে সুসংহত মানসিক প্রস্তুতি প্রয়োজন তা গঠনেই সাহায্য করে মেডিটেশন।

 

৫. আত্ম-নিমগ্নতা

মেডিটেশন মানে একজন মানুষের নিজের গভীরে নিমগ্ন হওয়া এবং অন্তরতম আমি-র সাথে সংযুক্ত হওয়া। তখনই একজন মানুষের অনুভবের দরজা খুলে যায় এবং সে নতুন সত্যকে অনুভব করতে পারে।

নচ/চখ

 

Loading...