chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

২০২১ হোক গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার পুনরুদ্ধার করার বছর : ডা. শাহাদাত

নিজস্ব প্রতিবেদক: চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, জনগণকে ভোট সেন্টারে আসার জন্য উৎসাহী করতে হলে নির্বাচন কমিশন ও সরকারের দৃশ্যমান নিরপেক্ষ নির্বাচনমুখী পদক্ষেপ নিতে হবে। জনগণকে উৎসাহী করতে হলে ভোট সেন্টারে নিরাপদে ভোট দেয়ার নিরাপত্তা দিতে হবে।  

শুক্রবার (১জানুয়ারি) সন্ধ্যায় নগরীর ৫ নং মোহরা ওয়ার্ড বিএনপির করোনা সুরক্ষা সামগ্রী ও মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

এসময় তিনি আরো বলেন, যেহেতু ১০ লাখ ভোটার নারী ও মহিলা। ই.ভি.এম-এ ব্যালট প্যানেলকে সুরক্ষা দিতে হবে। নির্বাচনের পরিবেশ এখনো সবার জন্য সমান নয়। প্রশাসন এখনো সরকারের নীলনকশা বাস্তবায়ন করছে। চসিক নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী সভা সমাবেশের সমান সুযোগ পাচ্ছে না। ভয় ভীতি প্রদর্শন করে সরকার কেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি কমনো পায়তারা করছে।

‘কেন্দ্র দখল ও ভোট কারচুপি ঠেকিয়ে চসিক নির্বাচনে ধানের শীষের বিজয় নিশ্চিত করতে হবে। সে জন্য নেতাকর্মীদের সর্বোচ্চ ত্যাগ শিকার করতে হবে। বিএনপির প্রতিটি নেতাকর্মী ভয়ভীতিকে উপেক্ষা করে সাধারণ জনগণকে সাথে নিয়ে ভোট ডাকাতদের প্রতিহত করার দীপ্ত শপথ নিতে হবে।’

প্রধান বক্তার বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর বলেন, দেশের জনগণ মনে করে ভোট দিলেও পাস না দিলেও পাস। দেশের নির্বাচনব্যবস্থা নির্বাসনের পথে পাড়ি দিয়েছে। নির্বাচনের নিয়ে ভোটারদের দিন দিন অনাগ্রহ এবং নিরুৎসাহ দেখা দিয়েছে। চসিক নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিয়েছে ভোটারদের কেন্দ্রমুখী করে জণগণের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠিত করতে।

‘ভোটের দিনের আগেই বিশেষ প্রতীকের পক্ষে আগাম সিল মেরে ব্যালট বাক্স ভরে রাখার ঘটনা চট্টগ্রামবাসী আর হতে দিবেনা। বিনা ভোটে নির্বাচনের ঢেউ যেন আছড়ে পড়ছে সর্বত্র। আসন্ন চসিক নির্বাচনে চট্টগ্রামবাসী বিনা ভোটে পাস কোন মেয়র কাউন্সিলর দেখতে চায় না। আমরা প্রশাসন ও নির্বাচন কমিশনকে আহবান জানাবো আগামী সুন্দর সমাজ ও রাষ্ট্র বিনির্মাণে ভয় ভীতিহীন নির্বাচনের পরিবেশ নিশ্চিত করার।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক ও নগর বিএনপির সদস্য আলহাজ্ব আবু সুফিয়ান বলেন, বিনা ভোটে নির্বাচিত এই ফ্যাসিস্ট সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকতে জনগণের প্রতিবাদী কণ্ঠকে স্তব্দ করতে গুম-খুন, হামলা-মামলাকে প্রধান হাতিয়ার হিসাবে গ্রহণ করেছে। সরকারের গায়ের জোরে ক্ষমতায় টিকে থাকার সময় শেষ হয়ে আসছে। আগামী ২৭ তারিখ সিটি নির্বাচনে ঐক্যবদ্ধভাবে সেন্টার পাহারা দিতে হবে। ভোট গণনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত ভোট সেন্টারে থাকতে হবে।

মোহরা ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি জানে আলম জিকুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র যুগ্ম আহবায়ক ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, সদস্য মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন, কামরুল ইসলাম, বিএনপি নেতা দিদারুল আলম চৌধুরী হীরামন এর সঞ্চালনায় আরো উপস্থিত ছিলেন এসএম আবুল কালাম আবু, আহমদ উল্লাহ, ইকবাল রহমান চৌধুরী, শহিদুল ইসলাম বাদশা, হাসনাত আলী, মোশারফ হোসেন, জিয়াউর রহমান জিয়া, গোলজার হোসেন, জমির উদ্দিন মানিক, আবু বক্কর শিকদার, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, মোরশেদ কামাল, নূরনবী আক্তার হোসেন, মো: মামুন, আব্দুল আজিজ, মোহাম্মদ ফরহাদ, আবু বক্কর আবু. জাহাঙ্গীর আলম বাবলু, আনোয়ার সাদেক রবিন, জয়নাল আবেদীন, সরোয়ার, শহিদুল ইসলাম ছোটন, মোহাম্মদ মনসুর, ফকির শাহাবুদ্দিন, সহ বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, শ্রমিকদল, মহিলা দল নেত্রী নেতৃবৃন্দ।

এসএএস/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...