মাস্ক পরিধান না করায় ৫৪ জনকে অর্থদণ্ড ও জেলা প্রশাসনের মাস্ক বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক : মাস্ক পরিধান নিশ্চিতকরণে জেলা প্রশাসনের দিনভর অভিযান ৫৪ ব্যক্তিকে অর্থদণ্ড ও মাস্ক বিতরণ। জেলা প্রশাসনের ৪ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট ও বিপনি বিতানে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়।

আজ বুধবার (০২ ডিসেম্বর) মাস্ক পরিধান না করায় জেলা প্রশাসনের অর্থদণ্ড ও মাস্ক বিতরণ করা হয়।

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস. এম আলমগীর মহানগরের বায়জিদ এলাকায় করোনা ভাইরাস সংক্রামণ প্রতিরোধে জনগণের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। এ সময় চট্টগ্রামের পক্ষ হতে জনসাধারণের মাঝে মাস্ক বিতরণ করা হয়। মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকালে ৭টি মামলায় ৭ জনকে ৭০০ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়।

অন্যদিকে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক নগরীর হকার্স মার্কেট ও রিয়াজুদ্দিন বাজারে অভিযানে মাস্ক না পরার কারণে ২০ ব্যক্তিকে ৩০০০ টাকা অর্থদণ্ড করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুরাইয়া ইয়াসমিন মহানগরীর আগ্রাবাদ বাদামতলী মোড় এলাকায় কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ নিশ্চিতকল্পে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন। এসময় মাস্ক ব্যবহার না করার দায়ে ১৬ টি মামলায় ১৬ জনকে ২৭৫০ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। জেলা প্রশাসন, চট্টগ্রাম এর পক্ষ থেকে হকার, ভিক্ষুক, পথচারী, বাসচালক, রিকশাচালকদের মাঝে প্রায় ২০০টি মাস্ক বিতরণ করা হয়।

অন্যদিকে নগরীর কাজীর দেউড়ি ও কর্ণফুলী নতুন ব্রিজ সকাল ১১ ঘটিকা থেকে দুপুর সাড়ে ১২ ঘটিকা পর্যন্ত কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ নিশ্চিতকল্পে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী। এসময় কাজীর দেউড়ি সিডিএ মার্কেট ও কর্ণফুলী নতুন ব্রিজে মাস্ক ব্যবহার না করার দায়ে ৯ টি মামলায় ৯ জনকে ২৫৫০ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। এসময় জেলা প্রশাসন , চট্টগ্রাম এর পক্ষ থেকে হকার, ভিক্ষুক, পথচারী, বাসচালক, রিকশাচালকদের মাঝে প্রায় ৩০০টি মাস্ক বিতরণ করা হয়।

জনস্বার্থে বাধ্যতামূলক মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে ও সচেতনতা সৃষ্টির জন্য এই ধরনের মোবাইল কোর্ট অব্যাহত থাকবে।
জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ উমর ফারুক বলেন, করোনার সম্ভাব্য সেকেন্ড ওয়েভকে সামনে রেখে মানুষকে সচেতন করার লক্ষে প্রতিদিন ৮ জন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট, বিপনি বিতান, শপিংমল, বাস স্ট্যন্ডে অভিযান পরিচালনা করছি। আশার কথা হলো গত কয়েকদিনের অভিযানে একটা ইতিবাচক প্রভাব দেখা যাচ্ছে বেশিরভাগ মানুষ মাস্ক পরে বাইরে আসছে।

তিনি আরো বলেন, মাস্ক নিয়ে জেলা প্রশাসনের ব্যাপক কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে মাস্ক পরতে সচেতন করা। যারা মাস্ক পরতে অবহেলা করছে তাদের অর্থদণ্ড দেয়া হচ্ছে।পাশাপাশি নিম্ন আয়ের মানুষকে মাস্ক দেয়া হচ্ছে।করোনাকালীন সময়ে বাধ্যতামূলক মাস্ক পরিধান নিশ্চিতকরণে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এএমএস/চখ

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...