ডবলমুরিংয়ে ধর্ষণের শিকার তরুণী, গ্রেফতার ৩

নিজস্ব প্রতিবেদক : নগরীর ডবলমুরিং থানার ১ নম্বর সুপারিওয়ালা পাড়ায় কথিত বান্ধবীর বাসায় বেড়াতে গিয়ে এক তরুণী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ঘটনার সময় ওই বান্ধবী পাহারা দিচ্ছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। বান্ধবী ও তার স্বামীসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গতকাল রবিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাতে জনৈক চান্দু মিয়ার বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে। গ্রেফতার তিনজন হলেন, নুরী আক্তার (২০) ও তার স্বামী মো. অন্তর (২৪) এবং ধর্ষকের দেহ রক্ষী মো. রাজিব (২৬)।

ডবলমুরিং থানার এসআই নুরুল ইসলাম জানান, এলাকায় বিভিন্নভাবে ক্ষমতাবান চান্দু মিয়ার চার তলা বাড়িতে নুরী বিভিন্ন সময় চান্দুকে অসামাজিক কাজে সহযোগিতা করে আসছিলেন বলে জানতে পেরেছি।

নুরী ও স্বামী অন্তর কদমতলীতে থাকেন। চান্দু এলাকায় চাদঁবাজি করে থাকেন। তার বিরুদ্ধে ডবলমুরিং থানায় ৪টি মামলা রয়েছে। সে মামলার পরোয়ানাভুক্ত আসামি।

ধর্ষণের শিকার তরুণীর বরাত দিয়ে এসআই নুরুল ইসলাম বলেন, ওই তরুণীর বয়স আনুমানিক ২০ বছর। সপ্তাহখানেক আগে ফেনী থেকে তিনি নগরীর আগ্রাবাদে সিডিএ আবাসিক এলাকায় চাচার বাসায় বেড়াতে আসেন।

তার চাচাত বোনের বান্ধবী গ্রেফতার হওয়া নুরী। সেই সুবাদে নুরীর সঙ্গেও ওই তরুণীর বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক হয়। রবিবার সন্ধ্যায় নুরী ওই তরুণীকে তার বাসায় বেড়াতে নিয়ে যায়।

রাত সাড়ে ৯টা থেকে সাড়ে ১০ টার মধ্যে নুরী কৌশলে তাকে চান্দুর বাসায় পৌঁছে দেয়। বাসার ভেতরে বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করা হয়। বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে পাহারায় ছিল নুরী। চান্দু মেয়েটিকে ধর্ষণ করে।

ঘটনার পর নুরী ওই তরুণীকে তার চাচার বাসায় পৌঁছে দেয়। কিন্তু বিধ্বস্ত অবস্থা দেখে তরুণীকে বাসার লোকজন জিজ্ঞাসা করলে তিনি সবকিছু খুলে বলেন। তখন তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে নেওয়া হয়। সেখান থেকে ডবলমুরিং থানায় খবর দেওয়া হয়।

এসআই নুরুল ইসলাম আরও জানান, খবর পেয়ে বন্দর এলাকায় অভিযান চালিয়ে নুরীকে আটক করা হয়। নুরীর কাছে মোবাইল নিতে এসে আটক হন স্বামী অন্তর। চার দিন আগে তাদের বিয়ে হয়।

তবে অন্তর ঘটনার বিষয়ে কিছুই জানে না বলে পুলিশের কাছে দাবি করেছে। এরপর ১ নম্বর সুপারিওয়ালা পাড়ায় অভিযান চালিয়ে ধর্ষক চান্দুর দেহরক্ষী মো. রাজিবকে গ্রেফতার করা হয়।

মূল অভিযুক্ত পলাতক চান্দুকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে বলে জানিয়েছেন এসআই নুরুল ইসলাম।

এসএএস/চখ

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...