উখিয়া থানায় প্রথম নারী ওসি মর্জিনার স্থলাভিষিক্ত হলেন সঞ্জুর মোরশেদ

ডেস্ক নিউজ : কক্সবাজার জেলা জুড়ে পুলিশের বড় রদবদলে উখিয়া থানার ওসি মর্জিনার স্থলাভিষিক্ত হলেন আহমেদ সঞ্জুর মোরশেদ। শনিবার থানার নতুন ওসি হিসেবে বিদায়ী ওসির নিকট থেকে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন তিনি।

জানা গেছে, কক্সবাজার জেলার নবাগত পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান ২৫ সেপ্টেম্বর উখিয়া থানার ওসি হিসেবে আহমেদ সঞ্জুর মোরশেদকে নিয়োগ প্রদান করে আদেশ দেন।

একইদিন উখিয়া থানা ছাড়াও কক্সবাজার জেলার আরো ৭টি থানায় নতুন ওসি নিয়োগ দিয়েছেন তিনি।

এরমধ্যে কক্সবাজারের টেকনাফ থানার বরখাস্তকৃত ওসি প্রদীপ কুমার দাশের জায়গায় নতুন করে নিয়োগ পেয়েছেন পরিদর্শক (ইন্সপেক্টর) মো. হাফিজুর রহমান। এ ছাড়া কক্সবাজার সদর থানায় ওসি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন শেখ মুনীর উল পিয়াস।

চকরিয়া থানায় শাকের মোম্মদ যুবায়ের, পেকুয়া থানায় মো. সাইফুর রহমান মজুমদার, মহেশখালী থানায় মো. আবদুল হাই, কুতুবদিয়া থানায় মো. জালাল উদ্দিন ও রামু থানায় কে এম আজমিরুজ্জামান।

পুলিশ সুত্রে জানা যায়, উখিয়া থানায় সদ্য যোগদান করা ওসি আহম্মদ সঞ্জুর মোরশেদ ২০১৪ সনে সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক থানায় উপ-পরিদর্শক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি ছাতক থেকে ওসি (তদন্ত) হিসেবে দায়িত্ব নিয়ে যোগদান করেছিলেন সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায়।

অত্যন্ত চৌকস পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে সুনামগঞ্জ সদরবাসীর তিনি জনপ্রিয় হয়ে উঠেন। এরপর তাকে প্রথম বারের মতো (ওসি) হিসেবে সুনামগঞ্জের শাল্লা থানায় বদলী করা হয়। সেখানে মাত্র ২ মাস ১০ দিন দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি শাল্লায় যোগদানের পর চুরি, ডাকাতি ও ছিনতাইসহ অপরাধ দমনে বলিষ্ট ভুমিকা পালন করেন। সমাজের অপরাধে জড়িতদের সু-পরামর্শ দিয়ে অন্যায় পেশা থেকে বিরত রাখার চেষ্টা করেন। পাশাপাশি তাদের সন্তানদের লেখা পড়ার জন্য তিনি বই খাতা ও কলম তুলে দিয়েছিলেন।

সুনামগঞ্জের শাল্লা থানায় থাকা ওসি মোরশেদের সুকৌশলী ভমিকায় বিভিন্ন ইউনিয়নের একাধিক মামলার আসামীরা তার কাছে আত্মসমর্পন করেছিল।

ওসি মোরশেদের প্রসংশনীয় ভুমিকায় মুগ্ধ ছিলো পুলিশ ডিপার্টমেন্ট। ছাতকে ওসি হিসেবে যোগদানের পর তিনি এলাকায় অসামাজিক কার্যকলাপ, মাদক,জুয়া ও নৌপথে চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে ছিলেন।

এদিকে সদ্য বিদায়ী উখিয়া থানার প্রথম নারী ওসি মর্জিনা আকতারের বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। এক কলেজছাত্রী তার বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন মামলাও করেছেন। এছাড়া ওসি প্রদীপের সঙ্গে মিলে এক ব্যক্তিকে ধরে এনে তার বাসার টাকাপয়সা লুটপাটের অভিযোগ রয়েছে মর্জিনার বিরুদ্ধে।

চখ/রাজীব

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...