২ বলে ২৭ রান!

খেলা ডেস্ক: ২০তম ওভারের প্রথম ও দ্বিতীয় বলে ছক্কা। পরের দু’টি বলেও ছক্কা মারেন জোফরা আর্চার। তবে এ দু’টি বল ‘নো বল’ ডাকেন আম্পায়ার। এরপরের বলটি ওয়াইড হলে ওভারের প্রথম দুই বলেই রাজস্থানের স্কোরবোর্ডে যোগ হয়ে যায় ২৭ রান! আর দুঃস্বপ্নের মতো ওভারটি করেন দক্ষিণ আফ্রিকান পেসার লুঙ্গি এনগিডি।

আইপিএলের চতুর্থ ম্যাচে টস জিতে আগে ফিল্ডিং নেন চেন্নাই সুপার কিংস অধিনায়ক এমএস ধোনি। কিন্তু চাপ সৃষ্টি করতে পারেনি বোলাররা। যার ফলে শারজায় প্রথমে ব্যাট করে রাজস্থান রয়্যালস ২০ ওভারে করে ৭ উইকেটে ২১৬ রান। যা এখনও পর্যন্ত এবারের আইপিএলে সর্বোচ্চ সংগ্রহ।

জবাব দিতে নেমে ১১৪ রানেই পাঁচ উইকেট হারিয়ে রীতিমতো চাপে পড়ে চেন্নাই। ওই অবস্থায় ক্রিজে এসে একেবারেই অলৌকিক ছাড়া তেমন কিছুই করার ছিল ক্যাপ্টেন কুল খ্যাত ধোনির। প্রতি ওভার শেষেই বাড়তে থাকে আস্কিং রেট। সঙ্গী হিসেবে গোটা কয়েক ছক্কা হাঁকিয়ে কিছুটা হলেও চেষ্টা করেন ফ্যাফ ডু প্লেসিস।

১৯তম ওভারের পঞ্চম বলে আউট হওয়ার আগে ৩৭ বলে সাত ছক্কা আর মাত্র একটি চারে ইনিংস সর্বোচ্চ ৭২ রান করলেও তা জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিল না। কেননা, উল্টো প্রান্তে যে ফিনিশার হতে পারেননি ধোনি। ৩১ বলে দুজনের ৬৫ রানের জুটিতে যে ধোনির যোগান ১২ বলে মাত্র ৯!

আসলে এখানেই হেরে যায় চেন্নাই। কেননা, ফ্যাফ যখন ফিরলেন তখনই তো ৮ বলে চেন্নাইয়ের দরকার ছিল ৩৮ রান। শেষ ওভারে গিয়ে ধোনি পরপর তিনটি ছক্কা হাঁকালে তা দর্শককে কিছুটা হলেও বিনোদন দিতে পারলেও মন ভরেনি সমর্থকদের। ৬ উইকেট হারিয়ে ২০০ রানে থামে চেন্নাই সুপার কিংস। ফলে ১৬ রানের পরাজয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় ধোনি বাহিনীকে।

এদিকে স্টিভ স্মিথ ও সঞ্জু স্যামসনকে থামাতে পারেননি চেন্নাই সুপার কিংসের বোলাররা। ওপেনার যশস্বী জয়সওয়াল ফিরে যাওয়ার পরে রানের গতি বাড়ানোর কাজ করেন স্মিথ ও সঞ্জু। মাত্র ১৯ বলে পঞ্চাশ রান করেন স্যামসন। শেষে ৩২ বলে ৭৪ রানে তিনি ফেরেন এনগিডির বলে।

সঞ্জু ফেরার পরে রাজস্থানের ইনিংস টানার কাজ করেন স্মিথ। ৪৭ বলে ৬৯ রান করেন তিনি। স্মিথ ফিরে যাওয়ার পরে এক সময়ে মনে হয়েছিল দুশো পেরোতে পারবে না রাজস্থান। কিন্তু শেষ ওভারে এনগিডির ওই ওভারে আসে এবারের আইপিএলের সর্বোচ্চ ৩০ রান।

চারটি ছক্কা মারেন জোফ্রা আর্চার। ৮ বলে ২৭ রান করেন তিনি। আর এতেই রাজস্থানের ইনিংসটি সাজানো ছিল ১৭টি ছক্কায়।

তৃতীয় ওভারে প্রথম উইকেট হারায় রাজস্থান। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে নজরকাড়া যশস্বী জয়সওয়াল আগের বলেই দীপক চাহারকে বাউন্ডারি মারেন।

পরের বলটাও একই রকম ছিল। মারতে গিয়ে সময়ের গোলমাল হয়। উইকেটের পিছনে দাঁড়ানো ধোনি ক্যাচ ধরার জন্য দৌড়লেও চহারই কল করেন। তিনিই ক্যাচ ধরেন যশস্বীর (৬)। প্রথম উইকেট যাওয়ার পরে স্টিভ স্মিথ ও সঞ্জু স্যামসন রাজস্থানের ইনিংসে গতি আনার কাজ শুরু করেন।

এমআই/

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...