চট্টগ্রামে ৬ প্রতিষ্ঠানকে ৩১ হাজার টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক : নগরীর কোতোয়ালী, ডবলমুরিংপাহাড়তলীতে অভিযান চালিয়ে ৬ প্রতিষ্ঠানকে ৩১ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। এসময় মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য, অননুমোদিত সস, মেয়াদবিহীন কাটা ঔষধ ও অননুমোদিত ঔষধ ধ্বংস করা হয়।

আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত পরিচালিত এই অভিযানে অংশ নেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারি পরিচালক পাপীয়া সুলতানা লীজা এবং চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ের সহকারি পরিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান। অভিযানে সহায়তা করেন এপিবিএন সদস্যরা।

অভিযানের বিষয়ে মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান বলেন, কোতোয়ালী থানার রহমতগঞ্জ এলাকার প্রত্যয় প্লাস স্টোরকে মোড়কজাত পণ্যে নিজে মূল্য প্রদান করায় ৩ হাজার টাকা জরিমানা করে সতর্ক করা হয়। আবদুস সাত্তার রোডের তানভীর ফ্যামিলি স্টোরকে পণ্যের মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করা ও মেয়াদোত্তীর্ণ কোমলপানীয় ও অন্যান্য খাদ্যদ্রব্য সংরক্ষণ করায় ৮ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ সময় বর্ণিত মেয়াদোত্তীর্ণ খাদ্য পণ্য ধ্বংস করা হয়।

এছাড়া মোমিন রোডের মেসার্স ঝাল বিতানকে অননুমোদিত সস সংরক্ষণ করায় ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ সময় প্রায় ৫ লিটার সস ধ্বংস করা হয়। মেসার্স হক স্টোরকে উৎপাদন মেয়াদবিহীন পণ্য ও মেয়াদোত্তীর্ণ বোতলজাত আচার শেলফে সংরক্ষণ করায় ৮ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অন্যদিকে ডবলমুরিং থানার সিডিএ কর্ণফুলী মার্কেটের পাইকারি ও খুচরা পেঁয়াজসহ নিত্যপণ্য বিক্রেতাদের মূল্য তালিকা ও পণ্য ক্রয় রশিদ পর্যবেক্ষণ করা হয়। এ সময় নিত্যপণ্যের মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করায় খাজা গরীবে নেওয়াজ স্টোরকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পাহাড়তলী থানার কাঁচা রাস্তার মাথার জিলানী ফার্মেসিকে মেয়াদবিহীন কাটা ঔষধ ও অননুমোদিত ঔষধ সংরক্ষণ করায় ৫ হাজার টাকা জরিমানা করে সতর্ক করা হয়। জনস্বার্থে এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানান মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান।
এসএএস/

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...