যুবাদের ২২ বিশ্বকাপের প্রস্তুতি আগামী মাস থেকে

খেলা ডেস্ক: বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের পাইপলাইন সমৃদ্ধ করে মূলত বিভিন্ন বয়সভিত্তিক দল থেকে উঠে আসা যুবারা। তাই তাদেরকে সঠিকভাবে গড়ে তুলতে বর্তমানে নানা উদ্যোগ নিচ্ছে বিসিবি। ইতোমধ্যে অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের শিরোপা জিতেছে টাইগার যুবারা। 

বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (বিকেএসপি) চার সপ্তাহের আবাসিক ক্যাম্পে ৪৭ ক্রিকেটারের মধ্য থেকে অনূর্ধ্ব-১৯ প্রাথমিক দল গঠন করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের গেম ডেভেলপমেন্ট বিভাগ। তাদের নিয়েই আগামী ১ অক্টোবর থেকে বিকেএসপিতে শুরু হচ্ছে ২০২২ বিশ্বকাপের প্রস্তুতি।

অনূর্ধ্ব-১৯ দলের চার সপ্তাহের আবাসিক ক্যাম্পের শুরুটা হয়েছিল ২৩ আগস্ট যা স্থায়ী হয়েছে ১৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। এই চার সপ্তাহে ওয়ানডে ফরম্যাটের ৭টি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছেন টাইগার যুবারা। যদিও ৪টি ম্যাচ বৃষ্টিতে ৩০ ওভারে নামিয়ে আনা হয়েছে। এখান থেকেই পারফরম্যান্স বিবেচনায় যুবাদের প্রাথমিক দলের সদস্যদের বেছে নেয়া হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিসিবি’র এক সুত্রের দেয়া তথ্যমতে দলে রাখা হয়েছে ৩০ যুবাকে। তাদের নিয়ে ১ অক্টোবর বিকেএসপিতে শুরু হবে ন্যূনতম তিন সপ্তাহের স্কিল ট্রেনিং ক্যাম্প। দৈর্ঘ্যে বেড়ে তা চার সপ্তাহেও উন্নীত হতে পারে। আর এর মধ্য দিয়েই অনানুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হবে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের ২০২২ অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ ক্রিকেট মিশনের।

সেই লক্ষ্যে চলতি মাসেই প্রাথমিক দলে ডাক পাওয়াদের কোভিড টেস্ট করা হবে। এদিকে নবগঠিত দলের অনুশীলনে যোগ দিতে ইতোমধ্যেই কর্মস্থল ঢাকায় ফিরেছেন হেড কোচ নাভিদ নেওয়াজ ও ট্রেনার রিচার্ড স্টয়নার। নাভিদ নেওয়াজ ফিরেছেন ১৭ সেপ্টেম্বর। আর রিচার্ড ফিরেছেনে আজ রাতে। ফিরে দুজনই কঠোর কোয়ারেনটাইনে আছেন।

মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) এ তথ্য দিয়েছেন বিসিবি’র ন্যাশনাল গেম ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার আবু ইমামে মো. কাওসার।

তিনি জানালেন, ‘কত সদস্যের দল হয়েছে সেটা আমরা প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে দিয়ে দিব। যা হোক একটা প্রাথমিক স্কোয়াড হয়েছে। তাদের নিয়ে আমরা ন্যূনতম তিন সপ্তাহের একটি স্কিল ট্রেনিং ক্যাম্প করবো। চার সপ্তাহেরও হতে পারে। এটা আরো কিছু সিদ্ধান্ত আছে তার ওপরে নির্ভর করছে। আশা করি ১ অক্টোবর থেকে শুরু করতে পারব।’

এমআই/

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...