পাঠনীজীবীরাই ঘাট-ইজারা প্রাপ্তির বৈধ অধিকারী : সুজন

নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন বলেছেন, একমাত্র পাঠনীজীবীরাই ঘাট-ইজারা প্রাপ্তির বৈধ অধিকারী। নদী পারাপারে পাঠনীজীবীদের ভূমিকা অনস্বীকার্য। করোনা মহামারীকালে তাদের জীবন-জীবিকা অচল হয়ে পড়ে। তারপরও খেয়া পারাপারে তারা অবদান রেখে চলেছে।

বুধবার সকালে টাইগারপাস্থ চসিক প্রশাসকের দপ্তরে কর্ণফুলী নদীর ঘাট পাঠনীজীবী নেতৃবৃন্দের মতবিনিময় সভায় প্রশাসক এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, সরকারী নীতিমালা অনুসারে পাঠনীজীবীদের ঘাট ইজারা প্রাপ্তিতে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের রেজিস্ট্রেশন ভূক্তির উদ্যোগ নেয়া হবে যাতে আগামীতে পাঠনীজীবীরা বংশ পরম্পরায় ঘাট ইজারা পেতে পারবেন। কোন খোলা দরপত্র আহবান করা হবে না। পাঠনীজীবীদের মধ্যেই দরপত্র আহ্বান করা হবে। পাঠনীজীবীরা বাইরে ইজারাদারদের খেয়া পারাপার ছাড়া বিভিন্ন অনিয়মের কথা তুলে ধরলে প্রশাসক এ সমস্ত অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাগ্রহণ করবেন বলে আশ্বাস প্রদান করেন এবং সকলের সহনশীল আচরণ ও সহযোগিতা কামনা করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন চসিক প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মুফিদুল আলম, আইন কর্মকর্তা মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, প্রশাসকের একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, সাংবাদিক আলিউর রহমান, ১৪নং ঘাট পাঠনীজীবী সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ ফরিদুল হক, ১১নং ঘাট পাঠনীজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইয়াছিন, বাংলাবাজার ঘাট পাঠনীজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইউসুফ, কর্ণফুলী নদীর সাম্পান মাঝি কল্যাণ সমিতির সভাপতি এস এম পেয়ার আলীসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

এসএএস/

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...