ইউসুফ চৌধুরী ছাড়া ১৩ বছরে পূর্বকোণ

ডেস্ক নিউজঃ খুব ছোটবেলা থেকেই শুনে এসেছি সফল ব্যবসায়ী, শিল্পপতি ও সমাজসেবক ইউসুফ চৌধুরীর নাম। নিজ হাতেই যেন গড়েছেন এ নগরী। ভাবতেও অবাক লাগছে আজ তিনি স্বপ্নের নগরী ছেড়ে পাড়ি জমিয়েছেন অচিনপুরে।

দিন, মাস, বছর গড়িয়ে গড়িয়ে ১৩টি বছর, মোহাম্মদ ইউসুফ চৌধুরীকে ছাড়া অতিক্রম করল আধুনিক সংবাদপত্রের পথিকৃৎ দৈনিক পূর্বকোণ । ২০০৭ সালের এইদিনে  রাত সাড়ে ১২টায় তিনি পবিত্র মক্কা নগরীর জিয়াদ হাসপাতালে সবাইকে কাঁদিয়ে চলে যান না ফেরার দেশে। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৬ বছর।

মোহাম্মদ ইউসুফ চৌধুরী ১৯২১ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর রাউজানের ঢেউয়া হাজিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বর্ণাঢ্য কর্মজীবনে সংবাদপত্র শিল্পসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব অবদান রাখেন। ১৯৮৬ সালে তিনি দৈনিক পূর্বকোণ প্রকাশ করেন। ১৯৯২ সাল থেকেই ডেইরি ও পোল্ট্রি শিল্পের আন্দোলনে সক্রিয় ছিলেন তিনি। ডেইরি ও পোল্ট্রি ফার্ম এসোসিয়েশনের আমৃত্যু সভাপতিও ছিলেন। তিনি জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের আগমনস্থল নিজ বাড়িতে কবির স্মৃতিচিহ্ন রক্ষা, নজরুল মেলা এবং নজরুল পাঠাগারও স্থাপন করেন।

একাধারে বহুমুখী প্রতিভাসম্পন্ন এ দুর্লভ ব্যক্তিত্বের বর্ণাঢ্য জীবনালেখ্য সংক্ষেপে শেষ করা যাবে না। চট্টগ্রামের এ স্বপ্নদ্রষ্টা আমাদের মাঝে আর নেই, ভাবতেই বুকটা কেঁপে উঠে। তার এ শূন্যতা পূরণ হওয়ার নয়। তাই এখনো তাকে স্মরণ করতে গিয়ে আপ্লুত হন প্রবীণ সাংবাদিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিগণ।

দৈনিক পূর্বকোণের  সিনিয়র রিপোর্টার ও অনলাইন ইনচার্জ মু.সাইফুল আলম চট্টলার খবরকে জানান, মোহাম্ম ইউসুফ চৌধুরী চট্টলদরদী এবং পাঠক নন্দিত  দৈনিক পূর্বকোণের স্বপ্নদ্রষ্টা ছিলেন। ১৯৮৬ সালে দৈনিক পূর্বকোণ প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ইউনিভার্সিটি, চুয়েট প্রতিষ্ঠার নেপথ্য অগ্রনায়ক ছিলেন। তার প্রতিষ্ঠিত দৈনিক পূর্বকোণের অনেক সংবাদকর্মী দেশের  বিভিন্ন শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যমে কাজ করছে। এছাড়া পূর্বকোণ চট্টগ্রামের গণমানুষের কথা বলেছেন।

অনেকটা দুঃখ প্রকাশ করে সাইফুল আলম আরও বলেন, ইউসুফ চৌধুরীর এত অবদানের পরও তাকে একুশে পদক কিংবা স্বাধীনতা পদকের মত রাষ্ট্রীয় কোন সম্মাননা জানানো হয়নি।

এদিকে, লোহাগাড়ায় পূর্বকোণ পাঠক ফোরামের উদ্যোগে আজ বিকেল ৩টায় মোহাম্মদ ইউসুফ চৌধুরী স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল বটতলী মোটর স্টেশনস্থ এ রহমান মার্কেট চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়।

নিলা চাকমা/ কামরুল /চখ

 

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...