মোবাইলে সিম নেই, স্ক্রিনও নিস্ক্রিয় তবুও কথা বলার ছলে স্বর্ণ পাচারের চেষ্টা!

এনএসআই টিমের হাতে ধরা পড়ল বিমান যাত্রী

চট্টলার খবর স্পেশাল : মোবাইলে কোন অপারেটরের সিম সংযোগ নেই, বন্ধ মোবাইলটিতে স্ক্রিনও ছিল নিস্ক্রিয়। তবুও মনের মাধুরী মিশিয়ে ভাব নিয়ে কথা বলছিলেন আবদুল কাদের রেজওয়ান নামে দুবাই ফেরৎ এক বিমান যাত্রী।

আসলে তিনি লোক দেখানোর জন্য এমন পরিবেশ তৈরি করেনি। অভিনব পন্থায় তিনি অবৈধভাবে স্বর্ণ পাচারের চেষ্টা করছিলেন। তবে তার চমকপ্রদ কৌশলটি কোন কাজে আসেনি। ব্যর্থ হলো এ প্রচেষ্টা।

মঙ্গলবার (৮ নভেম্বর) দুবাই থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি ১৪৮ ফ্লাইটে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসার পর বিশেষ গোয়েন্দা শাখা (এনএসআই) টিমের কর্মকর্তাদের চ্যালেঞ্জের মুখে ধরা পড়ে স্বর্ণ পাচারের এ অভিনব কৌশলটি।

বিমান বন্দর কাস্টমস সুত্রে জানা গেছে, নগরীর কোতোয়ালি থানা এলাকার বাসিন্দা প্রবাসী আবদুল কাদের রেজওয়ান আগে থেকে ২৪ ক্যারেটের ২টি স্বর্ণের বার আনার ঘোষণা দিয়েছিলেন।

মঙ্গলবার সকালে সে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের পর ফরম পূরণ, ট্যাক্স জমাসহ আনুষঙ্গিক প্রক্রিয়া শেষ না করেই মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে বিমানবন্দর ছাড়ছিলেন। বিমান বন্দর কর্তৃপক্ষ তাকে পেছন থেকে বেশ কয়েকবার ডাকাডাকির পরও সে কর্ণপাত না করায় সন্দেহ হয় এনএসআই টিমের।

পরে মোবাইলটি কানে নিয়ে কথা বলতে বলতে টার্মিনালের ৩ নম্বর গেট পার হতে গেলেই বিমান যাত্রী রেজওয়ানকে অবৈধ পন্য আছে মর্মে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন এনএসআই টিম। এক পর্যায়ে রেজওয়ানের কানের কাছ থেকে মোবাইলটি কেড়ে নেন এনএসআই টিমের এক সদস্য।

মোবাইল হাতে নিয়ে বিশেষ গোয়েন্দা শাখার সকল সদস্যই রীতিমত বিস্মিত! দিব্বি কথা বলছিলেন যে ফোনটিতে সে মোবাইলটি বন্ধ। মোবাইলের স্ক্রিনও ছিল নিস্ক্রিয়।

মোবাইলটির কাভার খুলে দেখেন মোবাইলে নেই কোন সিম কার্ড। তবে তুলনামুলক ভারী। কারণ সিম কার্ড ও ব্যাটারির বদলে সেখানে ছিল স্বর্ণের একটি বার। যা পাতলা করে রাখা ছিলো মোবাইল কাভারের ভেতরে।

বিমানবন্দরে দায়িত্বরত এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন দুবাই ফেরত প্রবাসী রেজওয়ান বৈধ স্বর্ণের আড়ালে অবৈধভাবেও ভিন্ন কৌশল অবলম্বণ করে স্বর্ণ পাচারের চেষ্টা করছিলেন।

তিনি বলেন, রেজওয়ান দুইটি স্বর্ণ বারের ঘোষণা দিয়েছিলেন। তার কাছে অবৈধভাবে আরো একটি স্বর্ণ পাওয়া যাওয়ায় শুল্ককরের পাশাপাশি তাকে জরিমানাও দিতে হবে। নিয়ম অনুযায়ী স্বর্ণ বা শুল্কযোগ্য পণ্য আনলে যাত্রীরা ঘোষণা দিয়ে কর পরিশোধ করলেই ছাড়িয়ে নিতে পারেন।

এদিকে একই বিমানবন্দরে দুবাই থেকে আসা হাটহাজারীর মো. হাবিব উল্লাহর ব্যাগ তল্লাশী করে ১৫০ কার্টন সিগারেট উদ্ধার করেছে বিমান বন্দর কর্তৃপক্ষ।

চখ/রাজীব

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...