খেলার মাঠের জন্য নগর ছাত্রলীগের মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রাম নগরীতে দখল এবং সংস্কারের অভাবে জরাজীর্ণ হয়ে পড়া খেলার মাঠগুলো ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন করেছে মহানগর ছাত্রলীগ।

শনিবার (৫ সেপ্টেম্বর) সকালে নগরীর কাজির দেউড়িতে আউটার স্টেডিয়ামের সামনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরাও অংশ নেন। মানববন্ধন থেকে নগরীর কাজির দেউড়িতে অবস্থিত শিশুপার্ক উচ্ছেদ সেটিকে আবারও আগের মতো ছায়াঘেরা উদ্যানে পরিণত করার দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

মানববন্ধনে ছাত্রলীগ নেতারা বলেন, ‘সকল খেলার মাঠ দখলমুক্ত করা হোক। বাণিজ্যিকীকরণ বন্ধ করা হোক। আমরা খেলার মাঠে খেলতে চাই, দোকানপাট চাই না। চট্টগ্রামে ইনডোর স্টেডিয়ামের অভাব আছে। এজন্য চট্টগ্রামে কোনো আন্তর্জাতিক ইনডোর গেমস হচ্ছে না। আমরা পূর্ণাঙ্গ ইনডোর স্টেডিয়ামের দাবি জানাই।’

মানববন্ধনে নগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমু বলেন, চট্টগ্রামে বলতে গেলে এখন আর খেলার উপযুক্ত কোনো মাঠ নেই। এই শহরে উল্লেখযোগ্য মাঠ শুধু তিনটি- আউটার স্টেডিয়াম, পলোগ্রাউন্ড এবং প্যারেড মাঠ। এই মাঠগুলো থেকে তৈরি হয়েছে শত, শত খেলোয়াড়। এর মধ্যে ক্রিকেটে জাতীয় দলে নেতৃত্ব দিয়েছেন নান্নু, আকরাম, নাফিস, তামিম, আফতাবের মতো তারকা খেলোয়াড়রা। জাতীয় ফুটবল দলের অধিনায়ক মামুনও এই মাঠের সৃষ্টি। অথচ এই মাঠগুলোর আজকের অবস্থা কি? একটি মাঠও খেলার উপযুক্ত নেই। কোথাও দখল করে রাখা হয়েছে। সংস্কারের অভাবে ইট-পাথরের জঞ্জালে পরিণত হয়েছে। আবার মাঠ ইজারা দিয়ে দোকানপাট বানিয়ে একশ্রেণির মাফিয়াগোষ্ঠী কোটি কোটি টাকা আত্মসাত করেছে। আর আজকের কিশোর-তরুণরা খেলতে না পেরে মোবাইলে-ফেসবুকে আসক্ত হয়ে পড়ছে। খারাপ আড্ডা আর অপসংস্কৃতিতে আসক্ত হচ্ছে।

নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীর বলেন, ‘এখন চট্টগ্রাম শহরের প্রত্যেক গলির মোড়ে মোড়ে দেখা যায়, মোবাইল নিয়ে শিশু-কিশোর-তরুণরা ফেসবুক ঘাঁটছে, না হয় আড্ডা দিচ্ছে। মাঠ থাকলে তারা খেলতে যেত। এই যে কিশোর গ্যাং নিয়ে এত কথা হচ্ছে, এই কিশোর গ্যাং কেন সৃষ্টি হচ্ছে সেটা কি আমরা একবারও ভেবে দেখেছি ? পাড়ায়-পাড়ায় মাদকের আখড়া গড়ে উঠছে, শিশু-কিশোররা ইয়াবায় আসক্ত হচ্ছে। ইভটিজিং হচ্ছে। আমরা এই শিশু-কিশোর-তরুণদের খেলার মাঠ দিতে পারব না, মুক্ত বাতাস নেওয়ার জন্য একটি উদ্যান দিতে পারব না, তারা যাবে কোথায়? কাজির দেউড়ির শিশুপার্কের জায়গায় একসময় সবুজ উদ্যান ছিল, সবাই এসে মুক্তভাবে শ্বাস নিত। বিএনপি সরকার এসে ব্যবসায়িক স্বার্থে এই উদ্যানটা ধ্বংস করেছে। বারবার বলা হচ্ছে শিশুপার্ক উচ্ছেদের কথা। এটা হচ্ছে না কেন ? অবিলম্বে এই শিশুপার্ক উচ্ছেদ করে চট্টগ্রামবাসীকে সবুজ উদ্যান ফিরিয়ে দেওয়া হোক।’

এসময় অন্যান্যের মধ্যে নগর ছাত্রলীগের সহসভাপতি নাজমুল হাসান রুমি ও একরামুল হক রাসেল, সাংগঠনিক সম্পাদক খোরশেদ আলম মানিক, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য মিনহাজুল আবেদীন সানি, সহসম্পাদক কায়সার আহমেদ রাজু, আবুল মনসুর টিটু, শুভ ঘোষ, সদস্য সালাউদ্দিন বাবু, শেখর দাশ, আরাফাত রুবেল, মিজানুর রহমান মিজান, চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুভাষ মল্লিক সবুজ, পতেঙ্গা থানা ছাত্রলীগের সভাপতি হাসান হাবিব সেতু ও সাধারণ সম্পাদক মেহরাজ তৌসিফ, বন্দর থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুজ্জামান বাবু, ডবলমুরিং থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিব হায়দার, চান্দগাঁও থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শহীদ ও ইসলামিয়া কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মীর মোহাম্মদ ইমতিয়াজ বক্তব্য রাখেন।
এসএএস/

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...