রাঙ্গুনিয়া সরফভাটা হাজী আশরাফ আলী সড়কের সংস্কার কাজের উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার সরফভাটা ইউনিয়নে চলাচলের জন্য অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ যোগাযোগ মাধ্যম হাজী আশরাফ আলী সড়কের সংস্কার কাজ দ্রুত এগিয়ে চলেছে। সরফভাটার উত্তর ও দক্ষিণ অংশকে সংযুক্ত করেছে এই সড়কটি। যেটি দিয়ে প্রতিদিন এসব অঞ্চলের হাজার হাজার মানুষ চলাচল করেন। জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি বেশ কয়েক বছর ধরে বেহাল অবস্থার সৃষ্টি হলে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের সার্বিক নির্দেশনায় এলজিইডি থেকে এটি সংস্কারে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়।

সরফভাটা ক্ষেত্রবাজার থেকে মীরেরখীল বাজার পর্যন্ত সাড়ে ৩ কিলোমিটার সড়ক কার্পেটিং করাসহ সড়ক সংস্কারে প্রায় ৪ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। ঠিকাদার নিয়োগে বেশ কয়েকবার দরপত্র আহবানের পর অবশেষে মেসার্স আল আমিন ট্রেডিং নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এটির সংস্কার কাজ শুরু করেন। কাজ শুরুর কয়েক মাসের মধ্যেই প্রতিষ্ঠানটি সড়কের ৭০ শতাংশ কাজ সম্পন্ন করেন।

সোমবার (৩১ আগস্ট) সকালে সড়কের আরসিসি ঢালাই কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন সরফভাটা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রকৌশলী দিদারুল আলম, মেসার্স আল আমিন ট্রেডিং এর কর্মকর্তা মো. জসিম, আবুল কাশেম, এলজিইডি অফিসের সার্ভেয়ার মো. নাজিম উদ্দিন, আওয়ামী লীগ নেতা মো. শহীদুল্লাহ চৌধুরী, ব্যবসায়ী নেতা মো. হাছান প্রমুখ।

ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী জানায়, ২০০৮ সালের আগ পর্যন্ত এই সড়কটি কাঁচা মাটির সড়ক ছিল। রাঙ্গুনিয়ার কৃতি সন্তান ড. হাছান মাহমুদ এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর উনার সহযোগিতায় কোটি টাকা ব্যয়ে বেশ কয়েকটি কালভার্ট নির্মাণ করাসহ এইচবিপি দ্বারা এটির উন্নয়ন কাজ করা হয়েছিল। গত বেশ কয়েকবছর ধরে এই সড়কের ইট উঠে গিয়ে আবারও বেহাল অবস্থার সৃষ্টি হলে এটি সংস্কারের দাবী জানান স্থানীয়রা। এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের দাবীর প্রেক্ষিতে আবারও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের সহায়তায় এলজিইডির গ্রেটার চট্টগ্রাম-৩ প্রকল্পের আওতায় সড়কটি সংস্কারে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। কিন্তু এলজিইডি থেকে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নিয়োগে বার বার দরপত্র আহবান করা হলেও নানা জঠিলতায় কোন ঠিকাদার এই দরপত্রে অংশ নেয়নি। তবে উপজেলা প্রকৌশলী ও ইউপি চেয়ারম্যানের বিশেষ অনুরোধে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স আল আমিন ট্রেডিং দরপত্রে অংশ নিয়ে এটির সংস্কার কাজ শুরু করেন। এটির সম্পূর্ণ কাজ শেষ হলে এতদ অঞ্চলের হাজার হাজার মানুষ উপকৃত হবে বলে তিনি জানান।

উপজেলা প্রকৌশলী দিদারুল আলম জানান, সড়কটি সরফভাটা-বোয়ালখালী-ভান্ডালজুড়ি সড়কের সাথে সংযুক্ত। এটি দিয়ে বোয়ালখালী হয়ে সহজে চট্টগ্রাম শহর কিংবা কক্সবাজারে যাওয়া যাবে। সড়কটি সংস্কারের কাজ শেষের দিকে। ইতিমধ্যে পুরা সড়ক জুড়ে প্রয়োজনীয় মাটি ভরাট, গাইডওয়াল নির্মাণ, ৩টি বক্স কালাভার্ট নির্মাণ, একটি স্থানে ৫০ মিটার আরসিসি ঢালাই কাজ শেষ হয়েছে। এখন সর্বশেষ কার্পেটিংয়ের কাজ করা হচ্ছে। এই কাজও শেষ হলে চলাচলের জন্য সড়কটি উম্মোক্ত করে দেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

এসএএস/

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...