গণপরিবহনের বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহারের দাবি লেবার পার্টির

ডেস্ক নিউজ: করোনা পরিস্থিতির কারণে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি করে গণপরিবহন চালুর অনুমতি দিয়েছে সরকার। গণপরিবহনের বর্ধিত এই ভাড়া অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ লেবার পার্টি।

বুধবার (২৬ আগস্ট) লেবার পার্টির দফতর সম্পাদক আমানুল্লাহ মহব্বত স্বাক্ষরিত যুক্ত বিবৃতিতে এ দাবি জানানো হয়।

বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার ফরিদ উদ্দিন ও ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব লায়ন ফারুক রহমান বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে যাত্রী স্বল্পতার কারণে গণপরিবহনে ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়ানো হলেও জনসাধারণের কাছ থেকে ১০০ শতাংশ বেশি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে।

এখন করোনা পরিস্থিতি ও জনজীবন স্বাভাবিক হওয়ায় বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার ও গণপরিবহনে যাত্রী হয়রানি বন্ধ করতে হবে। পরিবহন সেক্টরে বিরাজমান চাঁদাবাজী ও নৈরাজ্য বন্ধ করা সময়ের দাবি।

লেবার পার্টির নেতারা বলেন, দেশবাসীর আপত্তি সত্ত্বেও সরকার করোনার অযুহাতে অযৌক্তিকভাবে বাস ভাড়া ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি করেছিল।

কিন্তু এখন বাসে যাত্রীদের জন্য ন্যূনতম স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনের কোনো ব্যবস্থা নেই। অতিরিক্ত যাত্রী তোলা হচ্ছে।

দাঁড়িয়েও যাত্রী পরিবহন করা হচ্ছে। এ অবস্থায়ও ৬০ শতাংশ অতিরিক্ত বাস ভাড়া আদায় করা হচ্ছে, যা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক ও জনগণের ওপর জুলুম। একই পরিবারের যাত্রীদের ক্ষেত্রেও ছাড় দেওয়া হচ্ছে না।

নেতারা আরো বলেন, পৃথিবীর দুই শতাধিক রাষ্ট্রে করোনা সংক্রমণ হয়েছে। কিন্তু কোনো দেশে গণপরিবহন বা বাস ভাড়া বৃদ্ধির নজির নেই। অথচ বাংলাদেশে জনগণের কাছ থেকে অযৌক্তিকভাবে অতিরিক্ত বাস ভাড়া আদায় করা হচ্ছে।

এমআই/

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...