চট্টগ্রামে সাংবাদিকদের ওপর সন্ত্রাসী হামলা, চবিসাসের নিন্দা ও প্রতিবাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রামে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধনে পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় সাংবাদিকদের ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (চবিসাস)।

মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) দুপুরে সংগঠনের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল ফয়সাল ও সাধারণ সম্পাদক জোবায়ের চৌধুরী এক যৌথ বিবৃতিতে এমন প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। এসময় হামলায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবিও জানানো হয়।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, বাঁশখালীর সাংসদ মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক মহান মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধাকে নিয়ে কটূক্তি এবং মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক মৌলভী সৈয়দের বড় ভাই মুক্তিযোদ্ধা ডা. আশরাফ আলীকে রাষ্ট্রীয় সম্মাননা না দেওয়ার প্রতিবাদে গত ২৪ আগস্ট মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ কমান্ড চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন আয়োজন করে। সকাল ১১টার দিকে মানববন্ধন চলাকালে লাঠিসোটা নিয়ে একদল সন্ত্রাসী সেখানে হামলা চালায়।

এসময় পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও চ্যানেল আই চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রধান চৌধুরী ফরিদ, ক্যামেরা পার্সন নবাব মিয়া, জনকন্ঠের ফটো সাংবাদিক সাইদুল আজাদ, জয় নিউজের ফটো সাংবাদিক বাচ্চু বড়ুয়া, নয়া দিগন্তের ফটো সাংবাদিক আকতার হোসেন, পূর্বদেশের ফটো সাংবাদিক এম. হায়দার আলী এবং সাঙ্গুর ফটো সাংবাদিক মো. জাহাঙ্গীর সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত হয়েছেন।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, গণমাধ্যমের খবর বলছে বাঁশখালীর সাংসদের এপিএস ও সাংসদের অনুসারী একজন জনপ্রতিনিধি হামলায় অংশ নিয়েছেন। এর আগেও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির (চবিসাস) সাবেক সভাপতি সাংবাদিক ফারুক আব্দুল্লাহর বিরুদ্ধে সাংসদের নির্দেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ষড়যন্ত্রমূলক মামলা করা হয়েছিল।

মুক্তিযুদ্ধ অবমাননা, মুক্তিযোদ্ধাকে নিয়ে কটূক্তি, সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা এবং সর্বশেষ প্রেসক্লাব চত্বরে মুক্তিযোদ্ধা ও সাংবাদিকদের ওপর সন্ত্রাসী হামলা কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। সাম্প্রতিক ঘটনার ধারাবাহিকতা বলছে এগুলো গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ। তাই এ বিষয়ে রাষ্ট্রীয় তদন্ত প্রয়োজন। আর সাংবাদিকদের ওপর হামলাকারী ও ইন্ধনদাতাদের চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনতে হবে।

একইসাথে সাংবাদিক পেশাজীবীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে প্রশাসনকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে দ্রুত যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবিও জানিয়েছে চবিসাস নেতৃবৃন্দ।

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...