শিপ্রার মামলা নেয়নি কক্সবাজার সদর থানা

নিজস্ব প্রতিবেদক : টেকনাফের বাহারছড়ায় পুলিশের গুলিতে নিহত মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খানের সহযোগী শিপ্রা দেবনাথের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা রের্কড করেনি কক্সবাজার সদর থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) রাত ১১টার দিকে শিপ্রা দেবনাথ ও তাদের টিমের আরেক সদস্য সাহেদুল ইসলাম সিফাত একজন আইনজীবীকে সাথে নিয়ে কক্সবাজার সদর থানায় যান।

এ বিষয়ে কক্সবাজার সদর থানার ওসি মোঃ খায়রুজ্জামান চট্টলার খবরকে জানান, গতকাল রাতে শিপ্রা দেবনাথ তার আইনজীবী নিয়ে থানায় এসেছিলেন। যেহেতু ঘটনাস্থল আমার থানার আওতাধীন নয়। তাই তার মামলাটি রের্কড করা হয় নি। তবে তাকে আমি পরার্মশ দিয়েছি। রামু থানায় গিয়ে অথবা আইসিটি ট্রাইব্যুনালে মামলা করতে বলেছি। ঘটনাস্থল রামু থানার আওতাধীন। অধিকতর বিস্তারিত জানতে তিনি প্রতিবেদককে রামু থানার সাথে কথা বলতে বলেন।

অন্যদিকে রামু থানার ওসি আবুল খায়ের চট্টলার খবরকে জানান, ‘শিপ্রা দেবনাথ থানায় আসে নি। কোন প্রকার যোগাযোগও করে নি। থানায় গেলে তার মামলাটি রের্কড হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাকে (শিপ্রা দেবনাথ) তো আগে থানায় আসতে হবে। না জেনে, না বুঝে তো মন্তব্য করতে পারছি না। আসলে বিষয়টা দেখবো’।

উল্লেখ্য, মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যার ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা মাদক মামলার আসামী হয়েছেন শিপ্রা দেবনাথ এবং সাহেদুল ইসলাম সিফাত। বর্তমানে তারা দুজনই জামিনে রয়েছেন। জামিনে বেরিয়ে আসার পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন মাধ্যমে শিপ্রা তার ব্যক্তিগত ছবি ও ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ তুলেন। পরে এই বিষয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করাসহ আইনী ব্যবস্থা নেয়ার হুশিয়ারি দেন শিপ্রা। এই প্রসঙ্গে ইতোমধ্যে শিপ্রা একটি ভিডিও র্বাতা গনমাধ্যম প্রেরন করেন।

এরই ধারাবিহকতায় শিপ্রা গতকাল পিবিআই পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার মো.মোস্তাফিজুর রহমানসহ অন্তত ১৫০ জনের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা করতে কক্সবাজার সদর থানায় যান।

কামরুল/এএমএস

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...