ইতিহাস গড়তে মুখোমুখি পিএসজি ও লাইপজিগ

ডেস্ক নিউজ : দ্বিতীয়বারের মতো উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনাল খেলছে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই। বেশ কয়েক বছর ধরে নেইমার জুনিয়র, কিলিয়ান এমবাপেদের মতো হেভিওয়েট ফুটবলারদের দলে ভেড়ালেও সাফল্য মেলেনি। তবে এবার সব বাধা পেরিয়ে ২৫ বছর পর জায়গা করে নিয়েছে সেমিতে। অন্যদিকে ২০০৯ সালে জার্মানি নতুন ক্লাব আরবি লেইপজিগের আবির্ভাব। আর এর মাত্র ১১ বছর পর নিজেদের ইতিহাসের প্রথমবার উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে উঠে আসে তারা।

মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) বাংলাদেশ সময় রাত একটায় প্রথম সেমিফাইনালে মাঠে নামবে পিএসজি এবং আরবি লেইপজিগ। এই ম্যাচ থেকে যে দলই ফাইনালে উঠবে সেই দলই প্রথমবারের মতো ইউরোপিয়ান ক্লাব প্রতিযোগিতার সর্বোচ্চ আসর চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল খেলবে।

এর আগে আটালান্টাকে হারিয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে এমবাপে-নেইমারা। ইউরো ক্লাব ইন্ডেক্স আগেই জানিয়েছিল কোয়ার্টার ফাইনালের এই ম্যাচে জয়ের সম্ভবনা দুই দলেরই প্রবল। একছত্র আধিপত্য দেখাতে পারবেনা কোনো দলই। দুই দলের মধ্যে ৪৭ দশমিক ০৩ শতাংশ জয়ের সম্ভবনা আটালান্টার আর ৫২ দশমিক ৯৭ শতাংশ জয়ের সম্ভবনা পিএসজির। আর মাঠের খেলাতেও দেখা গেল সেই পরিসংখ্যানের ছাপ। ম্যাচের ৯০ মিনিট পর্যন্ত ১-০ গোলের এগিয়ে ছিল আটালান্টা, তবে ৯০ এবং ৯৩ মিনিটে দুই গোল করে পিএসজি টিকিট কাটে সেমি ফাইনালের।

চ্যাম্পিয়নস লিগে নিজেদের যাত্রার সমাপ্তি প্রায় দেখে ফেলেছিল পিএসজি। রেফারির ঘড়ির কাঁটা তখন ৯০ ছুঁই ছুঁই, তখনও আটালান্টার বিপক্ষে ১-০’তে পিছিয়ে পিএসজি। ৯০তম মিনিটে মার্কুইনোস এক গোল দিয়ে সমতায় ফেরালেন দলকে। তখন অতিরিক্ত সময়ে গড়াচ্ছে ম্যাচ। কিন্তু নাটকীয়তার শেষ তখনই নয়। শেষ মুহুর্তের জন্য তোলা ছিল নেইমার-এমবাপেদের কাছে। এরিক চুপো মোটিং ৯৩ মিনিটে আরেকবার আটালান্টার জালে বল জড়ালেন। আর তাতেই হৃদয় ভাঙল আটালান্টার। এবং সেই সঙ্গে নিজেদের ইতিহাসে দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে উঠে গেল পিএসজি।

খাতা কলমে পিএসজি এগিয়ে থাকলেও ছেড়ে কথা বলেনি আটালান্টাও। পৃথিবীর সবচেয়ে রক্ষণাত্মক লিগে খেলেও মুড়ি মুড়কির মতো গোল করা আটালান্টা রুপকথা গড়েই ফেলেছিল। তবে শেষ মুহুর্তের দুই গোলে হাতছাড়া সেমি। ম্যাচের ৯০ মিনিট পর্যন্ত ১-০ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে থাকা এরপর তিন মিনিটের নাটকীয়তা! আর পিএসজির জয়।

আর এবারের শিরোপা জয়ের জন্য হট ফেভারিট অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে হারিয়ে শেষ চারে উঠে আসে লেইপজিগ। এই ম্যাচ ঘিরেও ছিল বেশ উত্তেজনা, ২০১৪ সালের পর থেকে রিয়াল মাদ্রিদ এবং ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর ক্লাব ব্যতীত কোনো ক্লাবই নক আউট পর্বে ডিয়েগো সিমিওনের অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে বিদায় করতে পারেনি। আর বিস্ময়কর ব্যাপার ছিল এবারের চ্যাম্পিয়নস লিগের মৌসুমের শেষ ষোল থেকেই রিয়াল মাদ্রিদ এবং ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর জুভেন্টাসে বিদায় নিয়েছে। তবে সব পরিসংখ্যানকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে আরবি লেইপঝিগের কাছে ২-১ গোলের ব্যবধানে হেরে কোয়ার্টার থেকে বিদায় নেয় অ্যাটলেটিকো।

কোয়ার্টার ফাইনালের এই ম্যাচ জয়ের সম্ভবনা ৪০ দশমিক ১৬ শতাংশ আরবি লেইপঝিগের আর ৫৯ দশমিক ৮৪ শতাংশ অ্যাটলেটিকোর।

দুর্দান্ত ফর্মে থাকা আরবি লেইপঝিগ অবশ্য ম্যাচ শুরুর আগেই কিছুটা পিছিয়ে ছিল। কেননা দলের সেরা খেলোয়াড় জার্মান স্ট্রাইকার টিমো ভার্নার চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচের আগেই ৫৪ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে নাম লিখিয়েছেন চেলসিতে। আর লেইপঝিগের হয়ে মাঠে নামবেন না বলেও জানিয়ে দিয়েছেন। ভার্নার সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে লেইপঝিগের হয়ে ৩৪টি গোল করেছিলেন গেল মৌসুমে।

স্বপ্নময় পথচলায় আরেকধাপ এগুলো লাইপজিগ। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে বিদায় করে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে মাত্র ১১ বছর আগে ফুটবল আঙিনায় পা রাখা জার্মানির ক্লাবটি। এক লেগের কোয়ার্টার ফাইনালে অ্যাটলেটিকোকে ২-১ গোলে হারিয়েছে লাইপজিগ।

দলের খবর:

পিএসজি: কোয়ার্টারের আগে চোট পেয়ে অনিশ্চিত ছিল কিলিয়ান এমবাপের খেলা নিয়ে। তবে অবিশ্বাস্যভাবে সুস্থ হয়ে আটালান্টার বিপক্ষে ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নামেন এমবাপে। আর তাই তো ধারণা করা হচ্ছে সেমিফাইনালে ম্যাচের একদম শুরু থেকেই খেলবেন এই ফ্রেঞ্চ তারকা।

তবে এমবাপে ফিরলেও পিএসজিতে হানা দিয়েছে ইনজুরি। আটালান্টার বিপক্ষেই ম্যাচের শেষ দিকে চোট নিয়ে মাঠ ছাড়েন কেইলর নাভাস। আর পিএসজির তরফ থেকে জানানো হয়েছে সেমিফাইনাইলে তাকে ছাড়ায় লড়তে হবে। তবে লেইপজিগকে হারাতে পারলে ফাইনালে তাকে মাঠে পাবে ফ্রেঞ্চ চ্যাম্পিয়নরা। এছাড়া সেমিফাইনালে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফিরছেন অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া এবং মার্কো ভেরাত্তি।

লেইপজিগ: ইনজুরির কারণে সেমিফাইনালে এদিন ইব্রাহিম কোতাতেকে দলে না পাওয়ার শঙ্কা লেইপজিগের। এছাড়া দলে থাকছেন না ফ্যাব্রিচ হার্টম্যান।

আর ইনজুরি ছাড়াও দলের সেরা তারকাকে ইতোমধ্যেই হারিয়েছে লেইপজিগ। জার্মান স্ট্রাইকার টিমো ভার্নার দলবদল করে এর মধ্যেই নাম লিখিয়েছেন চেলসিতে। আর জানিয়ে দিয়েছেন লেইপজিগের হয়ে খেলবেন না চ্যাম্পিয়নস লিগে। যদিও তাকে ছাড়ায় অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে হারিয়ে সেমিফাইনালে উঠে এসেছে লেইপজিগ। আর নিশ্চয়ই এই পরিস্থিতিতে আক্ষেপ করছেন ভার্নার।

দুই দলের সম্ভাব্য একাদশ:

পিএসজি: সার্জিও রিকো, হুয়ান বার্নাট, প্রেস্নাল কিম্পেম্বে, থিয়াগো সিলভা, থিলো কেহরার, মার্কো ভেরাত্তি, মার্কুইনস, অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, নেইমার জুনিয়র, মাউরো ইকার্দি এবং কিলিয়ান এমবাপে।

আরবি লেইপঝিগ: পিটার গুলাচসি, লুকাস ক্লোস্টারমান,ডায়োট উপামেকানো, মার্সেল হালস্টেনবার্গ, নর্দি মুকিলে, কেভিন ক্যামপ্ল, কোনার্ড লেইমার, অ্যাঞ্জেলিনো, ড্যানিয়েল অলমো, এমিল ফোর্সবার্গ এবং প্যাট্রিক সচিচক।

দুই দল কেবল একবারই মুখোমুখি হয়েছিল অতীতে। যদি তা ছিল প্রীতি ম্যাচে। সেবার লেইপজিগ ৪-২ গোলে হারিয়েছিল পিএসজিকে।

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...