৫১ মিলিমিটার বৃষ্টিতে সড়কে থৈ থৈ পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক : বৃষ্টিতে মানুষ ভিজলেও থৈ থৈ পানিতে ভাসছে বন্দরনগরী চট্টগ্রাম। অস্থায়ী দমকা হাওয়ার সঙ্গে ভারী বর্ষণে দুর্ভোগে পড়েছেন নগরবাসী। গতকাল রোববার (১৬ আগস্ট) রাত থেকে থেমে বৃষ্টিতে মহানগরীর কয়েকটি নিম্নাঞ্চলে সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা।

সোমবার (১৭ আগস্ট) দুপুর ২টার দিকে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, চট্টগ্রামে বৃষ্টি আরও দু-একদিন থাকতে পারে। সেই সাথে আকাশ আংশিক মেঘলা থেকে সাময়িকভাবে মেঘাচ্ছন্ন থাকতে পারে।

৫১ মিলিমিটার বৃষ্টিতে সড়কে থৈ থৈ পানি

চট্টগ্রামের কোথাও কোথায় অস্থায়ী দমকা হাওয়ার সঙ্গে মাঝারী থেকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে। দক্ষিণ, দক্ষিণ পূর্ব দিকে থেকে ঘণ্টায় ১২-১৫ কিলোমিটার বেগের বাতাস ৩০-৪০ কিলোমিটার পর্যন্ত বাড়তে পারে।

পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ শেখ ফরিদ আহমেদ জানান, সোমবার বেলা ১২টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ৫১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সাগর কিছুটা উত্তাল থাকায় চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া নদী বন্দরে ১ নম্বর নৌ সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এদিকে চট্টগ্রামে থেমে থেমে বৃষ্টিতে মহানগরীর নিম্নাঞ্চলে জলাবদ্ধতা তৈরি হওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন মানুষ। অনেকের নিচ তলার বাসা বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে। সোমবার সকালে কাজের প্রয়োজনে বাইরে আসা মানুষ বৃষ্টির কারণে দুর্ভোগে পড়েন। সড়কে গণপরিবহন কম থাকায় অনেকে বৃষ্টিতে ভিজেই কর্মস্থলে যোগ দেন। অনেক গাড়ি পানির মধ্যে স্টার্ড  বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নগরীর, চকবাজার, বহদ্দারহাট, বাকরলয়া, মুরাদপুর, ২ নম্বর গেট, আগ্রাবাদ, এক্সেস রোড, হালিশহর, চাক্তাই, খাতুনগঞ্জ, পাথরঘাটা, হালিশহর, রশিদ বিল্ডিং এলাকার নিম্নাঞ্চলে পানি থৈ থৈ করছে।

ভারী বর্ষণে ভূমিধসের শঙ্কায় নগরের সরকারি ও বেসরকারি মালিকানাধীন ১৭টি পাহাড়ের পাদদেশে ‘মৃত্যুঝুঁকি’ নিয়ে বসবাস করা লোকজনকে সরে যেতে মাইকিং করছে জেলা প্রশাসন।

এসএএস/এএমএস

Loading...