বায়তুল মোকাররমে প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত: ঈদুল আজহায় করোনা থেকে মুক্তির প্রার্থনা

নিজস্ব প্রতিবেদক :  মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আজহার প্রথম জামাত স্বাস্থ্যবিধি মেনে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে শনিবার সকাল ৭টায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

নামাজে ইমামতি করেন মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মাওলানা মিজানুর রহমান। নামাজ শেষে মোনাজাতে করোনাভাইরাস থেকে মুক্তির জন্য প্রার্থনা করা হয়।

এ সময় দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক আনিস মাহমুদসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

নামাজ আদায় শেষে মোনাজাতে দেশ-জাতির মঙ্গল কামনায় মহান রাব্বুল আলামিনের কাছে প্রার্থনা করা হয়। করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারীদের রূহের মাগফেরাত কামনা করা হয়। যারা করোনা আক্রান্ত হয়ে অসুস্থ রয়েছেন তাদের সুস্থতা কামনা করা হয়।
শনিবার সকাল থেকেই মাস্ক পরে মুসল্লিরা বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রথম জামাতে অংশ নিতে আসতে থাকেন। নির্ধারিত সময় সকাল ৭টায় শুরু হয় নামাজ।

নিরাপত্তা জন্য বায়তুল মোকাররম এলাকায় সাদা পোশাকের পাশাপাশি পুলিশের সদস্যদের দায়িত্ব পালন করতে দেখা গেছে।
ত্যাগ আর উৎসর্গের আদর্শে মহিমান্বিত পবিত্র ঈদুল আজহা। এবার ঈদ এসেছে এক ভিন্ন প্রেক্ষাপটে। করোনা মহামারির সঙ্গে বন্যার আঘাতে বিপর্যস্ত দেশের বিভিন্ন প্রান্তের অগণিত মানুষ। তাদের জীবনের ওপর নেমে আসা এ দুঃসময়ের অন্ধকার কবে কাটবে, তাও অজানা।

তবুও জীবনের গতি থেমে থাকে না কোনো বাধাতেই। যত দুর্যোগই থাকুক, ঈদ বলে কথা! সবকিছুর পরও এই দিনটিতে একে অন্যকে শুভেচ্ছা জানাবে মানুষ। সাধ্যমতো দান, খয়রাত, কোরবানির মাংস বিলি, খাওয়া-দাওয়া হবে। দুঃসহ দিনে কিছুটা হলেও আনন্দের সুযোগ তৈরি হবে।

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে ঈদুল আজহার ত্যাগের শিক্ষায় সবাইকে উদ্বুদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। এ ছাড়াও দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদেরসহ শীর্ষ রাজনীতিকরা।
এসএএস/

Loading...