নিজেকে নবী দাবি করে খুন হলেন এক ব্যক্তি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পাকিস্তানে নিজেকে নবী দাবি করায় এক ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। ধর্ম অবমাননার অভিযোগে তাহির আহমাদ নাসিম নামে ওই ব্যক্তিকে আদালতের মধ্যে গুলি করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে উত্তরাঞ্চলীয় শহর পেশাওয়ারে বিচার চলছিল। খবর বিবিসির।

ওই ব্যক্তি নিজেকে ‘নবী’ বলে দাবি করেছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। পাকিস্তানে ধর্ম অবমাননার শাস্তি মৃত্যুদণ্ড। যদিও সেখানে এ পর্যন্ত কারো রাষ্ট্রীয়ভাবে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়নি। তবে প্রায় ক্ষেত্রেই অভিযুক্ত ব্যক্তি সহিংস হামলার শিকার হন।

২০১৮ সালে একজন কিশোর নাসিমের বিরুদ্ধে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ আনে। তবে বুধবার সকালে বিচার চলাকালেই তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা গেছে, কোর্টের সিট থেকে ঢলে পড়ছে নাসিমের দেহ। নাসিমের হত্যাকারী খালিদ নামের এক ব্যক্তিকে হামলার পরপরই গ্রেপ্তার করা হয়। আরেকটি ভিডিওতে দেখা গেছে, হাতকড়া পরা অবস্থায় গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তি নাসিমের দিকে রাগান্বিতভাবে চিৎকার করে বলছে যে, সে ‘ইসলামের শত্রু’।

পেশাওয়ারের একজন মাদরাসা ছাত্র আওয়াইস মালিক সর্বপ্রথম নাসিমের বিরুদ্ধে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তোলেন। যুক্তরাষ্ট্রে থাকা অবস্থায় মালিকের সঙ্গে অনলাইনে কথোপকথন করেন নাসিম।

পরে মালিক বিবিসিকে বলেন, তিনি পেশাওয়ারের একটি শপিং মলে নাসিমের সঙ্গে দেখা করেন। সেখানে নাসিমের ধর্মীয় দৃষ্টিভঙ্গি সম্পর্কে জানতে চান তিনি। এরপরই পুলিশের কাছে মামলা করেন মালিক।

এমআই/

Loading...