সিএমপির সহযোগিতায় চালু হচ্ছে আল মানাহিলের কোভিড হাসপাতাল

নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) সহযোগিতায় বন্দরনগরীতে কোভিড-১৯ রোগের চিকিৎসায় আরও একটি হাসপাতাল চালু হতে যাচ্ছে। স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা আল মানাহিল ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন এই হাসপাতাল চালু করছে। সিএমপির সহযোগিতায় বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনও চট্টগ্রামে একটি হাসপাতাল তৈরির কাজ করছে।

চট্টগ্রাম নগরীর হালিশহরের ফইল্যাতলী বাজারে ৭০ শয্যার এই হাসপাতালে জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে কোভিড-১৯ রোগী ভর্তি শুরু করা যাবে বলে জানিয়েছেন আল মানাহিল ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের প্রধান সমন্বয়কারী আবুল কালাম আজাদ।

সিএমপির সহযোগিতায় চালু হচ্ছে আল মানাহিলের কোভিড হাসপাতাল

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) অতিরিক্ত উপকমিশনার (গণমাধ্যম) মো. আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, আল মানাহিল ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন করোনায় মৃতদের দাফনের কাজ করছে। তাদের এই উদ্যোগ প্রশংসিত হয়েছে। আমাদের কমিশনার স্যারের প্রস্তাবে এবং সিএমপির সহযোগিতায় তারা একটি হাসপাতাল তৈরির কাজে হাত দেয়। হাসপাতালটি এখন প্রায় প্রস্তুত। তারা আমাদের জানিয়েছে, ১ অথবা ২ জুলাই থেকে তারা রোগী ভর্তি শুরু করবে। আমরা তাদের সামগ্রিক নিরাপত্তা, টেকনিক্যাল ও লজিস্টিক সাপোর্ট দিচ্ছি।

সিএমপির সহযোগিতায় চালু হচ্ছে আল মানাহিলের কোভিড হাসপাতাল

আবুল কালাম আজাদ বলেন, প্রয়াত আইনজীবী সলিমুল হক খান মিল্কীর পরিবারের সদস্যদের দান করা একটি ভবনে গড়ে তোলা হয়েছে ‘আল মানাহিল নার্চার জেনারেল হাসপাতাল’। হাসপাতালে ৭০ শয্যার প্রতিটিতে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্ল্যান্ট থেকে অক্সিজেন সরবরাহ করা হবে। হাই ফ্লো নাসেল ক্যানোলাও আছে। ১০টি আইসিইউ শয্যা তৈরির কাজ চলছে। তিনটি ভেন্টিলেটরও অনুদান হিসেবে শিগগিরই পৌঁছাবে বলে তিনি জানান।

তিনি আরও বলেন, হাসপাতালে ছয়জন চিকিৎসক ছাড়াও পর্যাপ্ত সংখ্যক নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। ২৪ ঘণ্টা অ্যাম্বুলেন্সের সুবিধাও থাকবে। চিকিৎসা হবে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে।

আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমাদের স্বেচ্ছাসেবী সদস্যরা এতদিন ধরে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত ও করোনায় মারা যাওয়াদের লাশ দাফন করে আসছে। আমরা এখন একটি হাসপাতাল চালু করতে যাচ্ছি। আপাতত আমরা শুধু কোভিড রোগীদের চিকিৎসা দেবো। এই কাজে আমরা সবার সহযোগিতা প্রত্যাশা করছি। সিএমপি আমাদের যথেষ্ট সহযোগিতা দিচ্ছে। করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসা নিয়ে যে দুর্ভোগ, আমাদের হাসপাতালের মাধ্যমে সেটা কিছুটা হলেও আমরা লাঘব করার চেষ্টা করব।

 

এসএএস/এএমএস

Loading...