অনলাইনে পণ্য বিক্রির নামে অপহরণ, আটক ৪

নিজস্ব প্রতিবেদক: অনলাইনে সুরক্ষা সামগ্রী কিনতে নগরীর আকবর শাহ থানাধীন এলাকায় আসেন হাটহাজারীর ব্যবসায়ী মোঃ মোশারফ হোসেন। সেখানে তাকে অপহরণ করে এক নারীকে শ্লীলতাহানির মিথ্যা অভিযোগ তাকে মারধর করে তার মোবাইল টাকা পয়সা ছিনিয়ে নেয় একটি চক্র। অবশেষে আকবর শাহ থানার টহল পুলিশের সহায়তায় অপহরণের সাথে সরাসরি জড়িত চারজনকে নগদ ৩০ হাজার টাকা ও একটি মোবাইল সেট সহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে ।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস এর অভ্যন্তরে মেসার্স নূর ফ্যাশনে”র স্বত্বাধিকারী ব্যবসায়ী মোঃ মোশারফ হোসেন করোনা কালীন সময়ে সুরক্ষা সামগ্রী ক্রয়ের জন্য অনলাইনে ( সিটিজি বাজার ডট কম ) এ করোনা সুরক্ষা সামগ্রী সমূহের বিজ্ঞাপন দেখে তা ক্রয়ের জন্য সেখানে প্রদত্ত নাম্বারে যোগাযোগ করলে অপহরণকারী চক্র সরাসরি সুরক্ষা সামগ্রী ক্রয়ের জন্য ব্যবসায়ী মোশাররফ কে আকবরশাহ থানা এলাকায় তাদের হোলসেল প্রতিষ্ঠানে আসার জন্য বলে। ব্যবসায়ী মোশাররফ হোসেন সরল বিশ্বাসে সেখানে উপস্থিত হলে অপহরণকারী চক্রের অন্যতম সদস্য আলমগীর হোসেন তাকে কৌশলে বিশ্বকলোনী মধ্যম জানার খিল বি-ব্লকের ১৪৪নং আনোয়ারা বেগমের ভাড়া বাসায় নিয়ে যায়।
সেখানে পূর্ব থেকে উপস্থিত থাকা অপহরণকারী চক্রের মহিলা সদস্য শাহীনা আক্তার রুনার গায়ে ব্যবসায়ী মোশাররফ হোসেন হাত দিয়েছে বলে অভিযোগ তুলে তাকে ব্যাপক মারধর শুরু করে অপহরণকারী চক্রের অন্যান্য সদস্যরা। অপহরণকারী চক্রের মহিলা সদস্যের শ্লীতাহানি করার মিথ্যা অভিযোগ তুলে তারা এই সময় ব্যবসায়ী মোশারফ হোসেনের মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয় এবং তাকে বিকাশের মাধ্যমে টাকা আনার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। অন্যথায় তার পরিবারের সদস্যদের ফোন করে এই ঘটনা জানানো হবে বলেও হুমকি প্রদান করে।
অনন্যোপায় হয়ে ব্যবসায়ী মোশারফ হোসেন তার পরিচিত আরেক ব্যবসায়ী বন্ধু জাফরকে অপহরণকারীচক্রের মোবাইল ফোন থেকে জানাই তাকে অপহরণ করা হয়েছে এবং অপহরণকারীদের প্রদত্ত বিকাশ নাম্বারে দ্রুত টাকা পাঠানোর জন্য বলে।

এভাবে কয়েক দফা টাকা সংগ্রহ করার পর অপহরণকারী চক্র কাউকে কিছু না জানানোর শর্তে ব্যবসায়ী মোশারফ হোসেন কে ছেড়ে দেয়। ছাড়া পাওয়ার পর ব্যবসায়ী মোশারফ হোসেন আকবরশাহ থানা এলাকায় বসবাসরত তার কিছু বন্ধুদের সহযোগিতায় উক্ত অপহরণের ঘটনাটি আকবরশাহ থানার টহল পুলিশকে জানালে তারা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে অপহরণের সাথে সরাসরি জড়িত ৪ জনকে নগদ টাকা ও মোবাইলসহ আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

অপহরণকারী চক্রের ধৃত সদস্যরা হলো হলেন, ফেনী জেলার দাগনভূঁইয়া উপজেলার মৃত আবুল হাসেমের ছেলে আলমগীর হোসেন সাদেক (৩৫) তার স্ত্রী সাহিদা আক্তার রুনা, নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ি উপজেলার সুরুজ মিয়ার ছেলে নুর আলম (৩০) এবং তার স্ত্রী মনি আক্তার।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার (পাহাড়তলী জোন) মোঃ আরিফ হোসেন বলেন, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে গ্রেফতারকৃতরা একটি সংঘবদ্ধ চক্র যারা প্রতারনার মাধ্যমে মানুষের কাছ থেকে নগদ অর্থ ও মোবাইল ফোন হাতিয়ে নেয়। এই বিষয়ে ভিকটিম আকবরশাহ থানায় মামলা দায়ের করেছেন, তদন্ত অব্যাহত আছে। আশা করছি খুব দ্রুতই এই চক্রের অন্যান্য সদস্যদের গ্রেফতার করা সম্ভব হবে।

Loading...