কাজে যোগ দিয়ে নতুন ৫টি উপ কমিশনার পদ বাড়ালেন সিএমপি কমিশনার

নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) শীর্ষ পর্যায়ে ব্যাপক রদবদল করা হয়েছে।

রোববার (২৮ জুন) করোনামুক্ত হয়েই অফিসে যোগ দিয়ে সিএমপি কমিশনার মো. মাহবুবর রহমান এই রদবদল করেন।

সিএমপি পাঁচটি উপ-কমিশনার পদ বাড়ানো হয়েছে। গোয়েন্দা শাখা ও ট্রাফিক বিভাগে দুটি করে চারটি এবং প্রসিকিউশন শাখায় একটি পদ বাড়ানো হয়েছে।

সিএমপির অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, সিএমপি কমিশনার স্যার মো. মাহাবুবর রহমান নিজ ক্ষমতাবলে পাঁচটি পদ বাড়িয়ে বিভিন্ন পদমর্যাদার কর্মকর্তাদের রদবদল করেছেন।

জানা গেছে, সিএমপির গোয়েন্দা শাখায় এতদিন উত্তর ও বন্দর জোনে দুজন উপ-কমিশনার ছিলেন। এখন দক্ষিণ ও পশ্চিম জোন সৃষ্টি করে নতুন দুজন উপ-কমিশনারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

গোয়েন্দা শাখার উপ-কমিশনার (উত্তর) মিজানুর রহমানকে দক্ষিণের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। উত্তর জোনে দায়িত্ব পালন করবেন মুহাম্মদ আলী হোসেন। নবগঠিত পশ্চিম জোনে দায়িত্ব পালন করবেন মোহাম্মদ মনজুর মোরশেদ।

একইভাবে ট্রাফিক বিভাগেও দক্ষিণ এবং পশ্চিম জোন সৃষ্টি করে দুজন উপ-কমিশনারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। উত্তর জোনে দায়িত্ব পালন করে আসা উপ-কমিশনার মোহাম্মদ শহীদুল্লাহকে দক্ষিণ জোনের দায়িত্ব পেয়েছেন। পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্ট (পিওএম) বিভাগে দায়িত্বরত মো. মিলন মাহমুদকে উত্তরের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। গত সপ্তাহের এক আদেশে জয়নাল আবেদিনকে পশ্চিমের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।
প্রসিকিউশন শাখায় এতদিন উপ-কমিশনারের কোনো পদ ছিল না। গোয়েন্দা শাখার একজন উপ-কমিশনার অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করতেন। এখন প্রসিকিউশন শাখায়ও একটি উপ-কমিশনার পদ সৃজন করে এন এম নাসিরুদ্দিনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

পৃথক আদেশে অতিরিক্ত উপ-কমিশনারের তিনটি পদেও রদবদল এনেছেন সিএমপি কমিশনার। অপরাধ বিভাগের দক্ষিণ জোনে প্রশাসনিক দায়িত্বে থাকা অতিরিক্ত উপ-কমিশনার পংকজ বড়ুয়াকে বন্দর জোনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। পিওএম বিভাগ থেকে এ এম হুমায়ুন কবিরকে পশ্চিম জোনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এস্টেট অ্যান্ড বিল্ডিং শাখা থেকে নাদিয়া নূরকে সরবরাহ ও এমটি বিভাগে পাঠানো হয়েছে।

সিএমপির অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, অপরাধ বিভাগ এতদিন চারটি করে জোনে বিভক্ত ছিল। ট্রাফিক ও ডিবিকেও এখন চারটি জোনে ভাগ করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাসহ সার্বিক কাজের সুবিধার্থে নতুন পদ সৃষ্টি করা হয়েছে।

এর আগে রোববার সকালে করোনা জয় করে নিজের কর্মস্থলে ফিরেন চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের (সিএমপি) কমিশনার মো. মাহবুবর রহমান।

পরপর দুইবার করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ আসায় রোববার কর্মস্থলে যোগ দেন তিনি।
সকালে করোনা জয়ী পুলিশ কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমানকে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করে নেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) আমেনা বেগম। এসময় সেখানে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) এস. এম. মোস্তাক আহমেদ খান, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) শ্যামল কুমার নাথ সহ পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, করোনা প্রতিরোধে নগরবাসীর নিরাপত্তা বিধান করতে গিয়ে গত ৮ জুন সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান করোনায় আক্রান্ত হন। এর আগে উপসর্গ থাকায় ৪ জুন থেকে বাসায় আইসোলেশনে চলে যান তিনি।

এরপর বাসায় থেকে চিকিৎসা নিয়ে ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠেন তিনি। করোনাকে জয় করে আবার পূর্ণোদ্যমে জনগণের জন্য কাজ করে যাবার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান।

এসএএস/এএমএস

Loading...