চট্টগ্রামের পাহাড়ি এলাকায় জেলা প্রশাসনের অভিযান

নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলা এলাকায় বেশ কিছু পাহাড়ি এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেছে জেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম। 

মঙ্গলবার (২৪ জুন) সকাল থেকে পূর্ব নির্ধারিত সিডিউল অনুযায়ী চট্টগ্রাম মহানগরের উত্তর পাহাড়তলী এবং চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী উপজেলার অন্তগত জালালাবাদ ,

 

চট্টগ্রামের পাহাড়ি এলাকায় জেলা প্রশাসনের অভিযানসীতাকুন্ড উপজেলার অন্তর্গত জঙ্গল সলিমপুর মৌজায় পাহাড়ের ঢালে নির্মিত ঝুকিপূর্ন এবং অবৈধ স্থাপনায় বসবাসকারীদের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তরের যৌথ উদ্যোগে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয় ।

চট্টগ্রামের পাহাড়ি এলাকায় জেলা প্রশাসনের অভিযান

উচ্ছেদ অভিযানে জেলা প্রশাসনের পাঁচ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব মিল্টন রায় , উপজেলা নির্বাহী অফিসার সীতাকুন্ড ও বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট , জনাব শরীফ উল্লাহ , সহকারী কমিশনার ( ভূমি ) হাটহাজারী ও বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট , জনাব আবদুস সামাদ শিকদার , সহকারী কমিশনার ( ভূমি ) আগ্রাবাদ সার্কেল ও বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট , জনাব মো: তৌহিদুল ইসলাম , সহকারী কমিশনার ( ভূমি ) কাট্টলী সার্কেল ও বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট , জনাব মামনুন আহমেদ অনিক সহকারী কমিশনার ( ভূমি ) চান্দগাঁও সার্কেল ও বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট , চট্টগ্রাম নেতৃত্বদেন। উক্ত অভিযানে সহায়তা করেন পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক জনাব মোয়াজ্জম হোসেন , উপপরিচালক জনাব জমির উদ্দিন ও উপপরিচালক জনাব মিয়া মাহমুদুল হক।

চট্টগ্রামের পাহাড়ি এলাকায় জেলা প্রশাসনের অভিযান

অভিযান চলাকালে অবৈধ ও ঝুঁকিপূর্ণভাবে স্থাপিত প্রায় ৩৫০ টি স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। অভিযানে সার্বিক সহায়তা করেন পুলিশ বিভাগ, ফায়ার সার্ভিস , বিদ্যুৎ বিভাগ ও অন্যান্য সেবা সংস্থা । উক্ত উচ্ছেদ অভিযানের মাধ্যমে সচেতন মহলের ঝুঁকিপূর্ণ স্থাপনা অপসারনের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা পূরন হলাে বলে পরিবেশ অধিদপ্তর মনে করে। এই অভিযানের ফলে উক্ত এলাকায় চলতি বর্ষা মৌসুমে জানমালের ক্ষয়ক্ষতির ঝুঁকি অনেকটা হ্রাস পাবে বলে আশা প্রকাশ করা হয়।

 

 

Loading...