চমেকের সহযোগী অধ্যাপক ডা. সমিরুল ইসলাম আর নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের অর্থপেডিক বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. সমিরুল ইসলাম বাবু মারা গেছেন।(ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজিউন)।

আজ বুধবার (২৪ জুন) দুপুর ২টা ২০ মিনিটের দিকে তিনি নগরীর মেট্রোপলিটন হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের মহাব্যবস্থাপক সেলিম উদ্দীন।

ডা. সমিরুল করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম ১১ দিন বাসায় চিকিৎসা নিয়েছিলেন। পরে গত ২১মে তাকে চমেক হাসপাতালের একটি কেবিনে আইসোলেশনে চিকিৎসা দেওয়া হয়। ২৬ মে সকালের দিকে তার অক্সিজেনের সেচুরেশন কমে গেলে তড়িঘড়ি করে তার অক্সিজেনের চাপ বাড়ানো হয়।

এছাড়া একইদিন সন্ধ্যা সাতটার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ডা. সামিরুল ইসলামের শরীরে ২৫০ মিলিলিটার প্লাজমা দেওয়া হয়।

সদ্য করোনা যুদ্ধে জয়ী মো. তারেক নামে এক ব্যক্তির শরীর থেকে প্লাজমা সংগ্রহ করে তা এই চিকিৎসকের শরীরে দেওয়া হয়। এর দু’দিন পর সিএমপির করোনাজয়ী পুলিশ কনেস্টেবল অরুন চাকমার শরীর থেকেও প্লাজমা দেওয়া হয়। এতে পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হওয়ায় আরও ভাল পরিবেশে চিকিৎসা চালিয়ে যাওয়ার জন্য  গত ১৩ জুন ডা. সমিরুলকে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

মেট্রোপলিটন হাসপাতালের মহাব্যবস্থাপক সেলিম উদ্দিন বলেন, করোনা সংক্রমণে তার ফুসফুসের বেশ ক্ষতি হয়েছিল। করোনামুক্ত হলেও তিনি পুরোপুরি সুস্থ বোধ করেননি। আজ দুপুরে মেট্রোপলিটন হাসপাতালের আইসিইউতেই তিনি মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তিনি চিকিৎসক স্ত্রী ও দুই সন্তান রেখে গেছেন।

আজ বিকেল ৪টায় পুরাতন মেট্রোপলিটন হাসপাতালের সামনে তার নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে বলে পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে।

Loading...