দক্ষিণ আফ্রিকার ৭ ক্রিকেটার করোনায় আক্রান্ত

ডেস্ক নিউজ: চলতি মাসে ক্রিকেটে নতুন ফরম্যাটের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকায় ক্রিকেট ফেরানোর কথা চলছিলো। জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের নিয়ে আয়োজিত তিন দলের সেই টুর্নামেন্টের দিনক্ষণও ঠিক করা হয়েছিল। তবে সরকারের সবুজ সংকেত না পাওয়ায় সে সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসতে হয় প্রোটিয়া ক্রিকেট বোর্ডকে।

আর এই সিদ্ধান্ত এখন শাপেবর হিসেবে দেখা যাচ্ছে ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকায়। কারণ, দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেটে সাত জনের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়েছে। যদি টুর্নামেন্টটি হতো তবে সেটি হয়ে উঠতো ভাইরাসের হটস্পট। ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকার (সিএসএ) প্রধান নির্বাহী জ্যাক পল এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে কে বা কারা আক্রান্ত হয়েছেন ভাইরাসটিতে সেই তথ্য প্রকাশ করেননি জ্যাক পল। এমনকি কোনো ক্রিকেটার আক্রান্ত হয়েছেন কি না সেটিও জানাননি তিনি।

দক্ষিণ আফ্রিকায় ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট সবার গণহারে করোনা পরীক্ষা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সিএসএ। সে হিসেবেই সিএসএ’র বোর্ড কর্মকর্তা-কর্মচারী, টিম ম্যানেজমেন্টের সদস্য, ফ্র্যাঞ্চাইজি ট্রেনিং অ্যাসিস্ট্যান্ট এবং চুক্তিভূক্ত ক্রিকেটারসহ ১০০ জনের বেশি সদস্যের করোনা টেস্ট করেছে সিএসএ।

করোনা টেস্টের রিপোর্ট আসার পর দেখা যায় তারমধ্যে ৭ জনের রিপোর্ট পজেটিভ। প্রধান নির্বাহী জ্যাক পল এ বিষয়ে ২২ জুন স্পোর্টস২৪কে বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেটের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কেউ করোনা আক্রান্ত কি না তা পরীক্ষা করার উদ্যোগ নিয়েছিলাম আমরা। প্রাথমিকভাবে ১০০ জনের বেশি সদস্যের পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে সাতজনের করোনা পজিটিভ পাওয়া গেছে।’

এদিকে কারো পরিচয় প্রকাশ না করার কারণ হিসেবে জ্যাক পল আরও যোগ করেন, ‘আমাদের মেডিক্যাল এথিক্যাল প্রটোকল টিম আমাদেরকে করোনা পজিটিভ কারো নাম এবং পরিচয় প্রকাশের অনুমতি দেয়নি।’

দক্ষিণ আফ্রিকা ছাড়াও পাকিস্তান ও বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের করোনা আক্রান্তের খবর মিলেছে। বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে মাশরাফি বিন মর্তুজা, নাজমুল ইসলাম অপু ও সাবেক ক্রিকেটার নাফিস ইকবাল করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। আর পাকিস্তানে সাবেক অধিনায়ক শহিদ আফ্রিদি, তৌফিক উমর, শাদাব খান, হারিস সোহেল এবং হায়দার আলীর করোনা পজেটিভ হয়েছে।

Loading...