ব্যবসার নামে এমএলএম কোম্পানির ক্ষতিকর ওষুধ বিক্রি, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক : নগরীর মুরাদপুর এলাকার আইকন টাওয়ারস্থ এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড নামক এমএলএম কোম্পানির কার্যালয়ে যৌন ওষুধ বিক্রি করছে। সাধারণ মানুষের সরলতার সুযোগ নিয়ে মানুষ ঠকানোর ধান্ধা বন্ধ করতে অভিযান পরিচালনা করে জেলা প্রশাসন।

সোমবার (২২ জুন) পরিচালিত অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ উমর ফারুক। এসময় সেখান থেকে বিভিন্ন ধরনের ক্ষতিকর ওষুধ জব্দ করা হয়। প্রতিষ্ঠান কে বিভিন্ন অনিয়মের জন্যে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক বলে, প্রতিষ্ঠানটি মাল্টি লেভেল মার্কেটিং পদ্ধতিতে বিভিন্ন ধরনের ওষুধ ও কসমেটিক্স বিক্রয় করে আসছে যা ডাক্তারে পরামর্শ ব্যতিরেকে মানব দেহের জন্য বিপদজনক। ওষুধগুলোর মধ্যে পাওয়ার সোর্স কিং,ভিটা পাওয়ার,ওমেগা ৩-৬-৯,হার্ট কেয়ার ও গ্যানো মরিং ফুড ক্যাপসুল যা যৌন উত্তেজক, শক্তিবর্ধক, হৃদ রোগ কমায় বলে দাবি করে এমএলএম এর মাধ্যমে ব্যবসা করে আসছে।

তিনি আরও বলেন, একজন কাস্টমারকে সদস্য হতে হলে ৭ হাজার টাকার ওষুধ সামগ্রী কিনতে হয় ফলে নতুন কেউ যদি তার মাধ্যমে যোগ দেয় তাহলে তিনি কমিশন ৫০০ টাকা পায়।অর্থাৎ সাইক্লিং পদ্ধতিতে এ ব্যাবসা পরিচালনা করা হয়।

ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, এক্সিলেন্ড ওয়ার্ল্ডের ব্যবসার জন্যে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের কোন অনুমোদন নেই।

ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক হোসাইন মোহাম্মদ ইমরান বলেন ওষুধগুলির কোন রেজিষ্ট্রেশন নেই। ওষুধ গুলিতে থেরাপিউডিক দাবী করা হয়েছে যে বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা রোগের চিকিৎসায় এই ওষুধ সমুহ কাজ করছে।
প্রকৃতপক্ষে এসব ঔষধের সরকারের কোন অনুমোদন নেই এসব যৌন শক্তি বর্ধক জাতীয় ওষুধ প্রেস্ক্রিপশন করার কোন নিয়ম নেই। এসব ওষুধ সেবনে জনগনের স্বাস্থ্যের অনেক ক্ষতির করতে পারে।

অভিযানে কোম্পানির বিপুল পরিমান ওষুধ ও কাগজপত্র জব্দ করা হয়। এ ধরনের অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান জেলা প্রশাসনের এই কর্মকর্তা।

Loading...