মেয়ের বিয়েতে যৌতুক বিষধর সাপ

ডেস্ক নিউজ: ভারতকে বলা হয় বহু সংস্কৃতির দেশ। আয়তনে বিশালতার কারণে ভারতের নানা প্রান্তের জনপদে নানা ধরনের সংস্কৃতি ও প্রথার প্রচলন রয়েছে। এসব প্রথার মধ্যে কিছু কিছু এতটাই অদ্ভুত যে শুনলে বিস্মিত হতে হয়। কন্যার বিয়ের যৌতুক হিসেবে বিষধর সাপ প্রদান তেমনই একটি প্রথা।

ভারতের ছত্রিশগড় রাজ্যের জগিনগর গ্রামের অধিবাসীদের মধ্যে এই অদ্ভুত প্রথা প্রচলিত আছে। এখানকার পিতারা তাদের কন্যার বিয়ের সময় একুশ ধরনের বিষধর সাপ যৌতুক হিসেবে প্রদান করে। আপনার আমার কাছে এই প্রথা অদ্ভুত ঠেকলেও জগিনগরের মানুষের কাছে এটাই স্বাভাবিক।

শুধু যৌতুক হিসেবে সাপ নয়, বরং সাপ জগিনগরের মানুষের জীবনের সঙ্গে জড়িত। এখানকার মানুষেরা সাপের চাষ করে, সাপ খেলা দেখিয়ে অর্থ উপার্জন করে। সাপ তাদের পরিবারে সন্তান স্নেহে লালিত হয়।

এছাড়া সাপকে ভক্তিভরে পূজাও করে জগিনগরের মানুষ। সাপকে সেখানে নাগা দেবতার প্রতীক হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ফলে এই গ্রামে সাপ মারা অত্যন্ত গর্হিত কাজ। অর্থাৎ জগিনগরের মানুষের কাছে সাপ এক সাধারণ গৃহপালিত জীব, আরাধনার উপাদান। আর তাই প্রিয় কন্যার বিয়ের সময় পিতারা প্রিয় সাপকেই যৌতুক হিসেবে তুলে দেয়।

Loading...