লকডাউনের কারণে সোনার বাংলাসহ ২ ট্রেন বন্ধ হচ্ছে

ডেস্ক নিউজ : মহামারি করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে এখন সীমিত পরিসরে অর্ধেক আসন খালি রেখে চলছে ১৯ জোড়া ট্রেন। কিন্তু নোয়াখালী রেড জোন ঘোষণা করে লকডাউন করায় এই পথে দুটো ট্রেন সাময়িক বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ট্রেন দুটো হচ্ছে, চট্টগ্রাম-ঢাকা রুটের সোনার বাংলা এক্সপ্রেস এবং নোয়াখালী-ঢাকা রুটের উপকূল এক্সপ্রেস।

বুধবার (১৭ জুন) বাংলাদেশ রেলওয়ের অপারেশন বিভাগ জানিয়েছে, এ দুটো আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল আগামী রোববার (২১ জুন) থেকে বন্ধ থাকবে।

বাংলাদেশ রেলওয়ের অপারেশন বিভাগ বলছে, করোনা আতঙ্কে রেলের যাত্রী চলাচল আগের তুলনাই কমে এসেছে। তাছাড়া নোয়াখালীতে লকডাউনের কারণে বেশ কয়েকদিন থেকে উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেন ঢাকা থেকে লাকসাম পর্যন্ত যাতায়াত করছে। এসব কারণে এ দুটি ট্রেন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে।

করোনার কারণে গত ২৫ মার্চ থেকে রেল বন্ধ থাকার পর ৩১ মে থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে ট্রেন চলাচল শুরু হয়। বর্তমানে অর্ধেক আসন খালি রেখে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে বিভিন্ন রুটে ১৯ জোড়া যাত্রীবাহী আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করছে।

প্রসঙ্গত, করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার বৃদ্ধি পাওয়ায় নোয়াখালী সদর ও বেগমগঞ্জ উপজেলাকে সম্প্রতি লকডাউন ঘোষণা করা হয়।

প্রশাসন থেকে জানানো হয়েছে, লকডাউন চলাকালীন এই দুই উপজেলা থেকে কোনও মানুষ অন্য উপজেলায় যাতায়াত করতে পারবে না। অভ্যন্তরীণ সকল প্রকার যানবাহন বন্ধ থাকবে। তবে, খাদ্য, ডাক ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সরবরাহকারী যানবাহন, চিকিৎসক, পুলিশ ও গণমাধ্যম কর্মীদের বহনকারী যানবাহন চলবে।

এছাড়া, মুদি দোকান সপ্তাহে দুইদিন রোববার ও বৃহস্পতিবার এবং কাঁচা বাজার সপ্তাহে তিনদিন রোববার, মঙ্গলবার ও বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। ফার্মেসি খোলা থাকবে জোন ভিত্তিক।

Loading...