উত্তর কাট্টলীতে লকডাউন না মানায় জরিমানা

লকডাউনের বিধি-নিষেধ না মানায় উত্তর কাট্টলীতে ৭ দোকান ও ১১ ব্যক্তিকে জরিমানা করেছে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. উমর ফারুক।

বুধবার (১৭ জুন) পরিচালিত অভিযানে দেখা যায় লকডাউন থাকলেও কিছু মানুষ অহেতুক অপ্রয়োজনে রাস্তায় ঘুরাফেরা করে।

তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে যৌক্তিক কারণ না থাকায় ১১ ব্যক্তিকে অর্থদণ্ড করা হয়। উত্তর কাট্টলীর বাসিন্দা রাকিব হোসেন কে ২০০ টাকা,আব্দুল হালিম কে ২০০ টাক,আব্দুল হামিদ কে ২০০ টাকা, ফারহান কে ২০০ টাকা,ইমজান কে ২০০ টাকা,সোহেল কে ২০০ টাকা, ইব্রাহিম কে ২০০ টাকা, রফিক মিয়া কে ২০০ টাকা,বাবলু মিয়াকে ২০০ টাকা,সিরাজ মিয়াকে ৩০০ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়।

উত্তর কাট্টলীতে লকডাউন না মানায় জরিমানা
এছাড়া দোকান খোলা রাখায় মীম স্টোর কে ১০০০ টাকা,নবী স্টোর কে ১০০০ টাকা,ইস্পা স্টোর কে ১০০০ টাকা,ইমাম স্টোর কে ১০০০ টাকা,লাকক্সারী স্টোর কে ১০০০ টাকা, জামান স্টোর কে ৫০০ টাকা, ফারিয়া স্টোর কে ৫০০ টাকা, সামাজিক দুরত্ব বজায় না রাখায় অসীম ফার্মেসীকে ৫০০ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়।

উত্তর কাট্টলীতে লকডাউন না মানায় জরিমানা

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক জানান, লকডাউন ঘোষণা করা হলেও লোকজন সরকারী আদেশ অমান্য করে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে যেমন মাস্কবিহীন অযথা ঘুরাফেরা করে যার ফলে তাদের আইনের আওতায় আনা হয়।

তিনি আরও জানান, কিছু ক্ষেত্রে দেখা যায় চা স্টল সহ গ্রোসারী দোকান খুলে মানুষের ভীর বাড়িয়ে বেচাকেনা করছে যার ফলে তাদের কে অর্থদন্ড করা হয় এবং ভবিষ্যতে দোকান খুলবেননা মর্মে সতর্ক করা হয়।

অভিযানকালে দেখা যায় আসরের নামাযে একটি মসজিদে প্রায় ৪০ জন মুসল্লি নামায আদায় করে ফলে মুয়াজ্জিন ও ইমাম সাহেবকে অনুরোধ করা হয় যাতে ইসলামী ফাউন্ডেশন এর নির্দেশ অনুযায়ী ৫ জনের জামাত নামাজ পড়া হয়। মাইকিং এর মাধ্যমে সবাইকে লকডাউনের বাধ নিষেধ মেনে চলার জন্যে সবাইকে অনুরোধ করা হয়।

Loading...